প্রচ্ছদ / রাজনীতি / বিস্তারিত

মো. ইলিয়াস

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

বাঙালি এবার স্বৈরাচার বিদায় করবে: হাফিজ

   
প্রকাশিত: ৯:১৪ অপরাহ্ণ, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অব.) হাফিজউদ্দিন আহমেদ বলেছেন, আজকে যেমন চতুর্দিকে কবরের ন্যায় নীরব, শান্ত পরিস্থিতি এরকম থাকবে না। বাঙালি কোনও স্বৈরাচারকে সহ্য করেনি। ব্রিটিশদের বিদায় করেছে, পাকিস্তানিদের বিদায় করেছে, এবার বাঙালি স্বৈরাচারকে বিদায় করবে, সেই সময় সমাগত। শ‌নিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) জাতীয় প্রেসক্লা‌বের সাম‌নে জাতীয়তাবাদী মু‌ক্তিযু‌দ্ধ প্রজন্মের উদ্যো‌গে আপসহীন নেত্রী বেগম খা‌লেদা জিয়ার নিঃশর্ত মু‌ক্তির দা‌বি‌তে এক মানববন্ধ‌নে তি‌নি এসব কথা ব‌লেন।

দেশের জনগণকে উদ্দেশ্য করে মেজর হাফিজ বলেন, আপনারা রাজনৈতিক দলের দিকে তাকিয়ে থাকবেন না। দেশের গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনা এবং আইনের শাসন কায়েম করা প্রত্যেক নাগরিকের অবশ্যই কর্তব্য। তিনি বলেন, এখন সারা দেশে দুই নম্বরের জয়ধ্বনি চলছে। এখন বিএনপি কয় নম্বর দল হবে সেটা তাদের নিজেদের নির্ধারণ করতে হবে। আমরা ৩০ বছর যাবত আমাদের প্রিয় দল করছি। আজ সেই দলের নেত্রী দুই বছরের অধিক সময় ধরে কারাগারে। আমরা নীরবে চুপচাপ করে বসে আছি। কই, রাজপথে তো এর কোনও সংগ্রামী প্রতিবাদী বার্তা আমরা দেখতে পাইনি!

মেজর হাফিজ বলেন, আজকে বাংলাদেশ ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে দাঁড়িয়ে আছে। কিছুদিন আগে খোদ ঢাকা শহরে ভোট ডাকাতি হয়ে গেল। এখানে এত লোক উপস্থিত, অথচ কেউ ভোট দিতে পারেননি। সাধারণ জনগণ ভোটকেন্দ্রে যায়নি।

সরকারের সমালোচনা করে তিনি বলেন, এই সরকার একটি দুর্বল সরকার। তারা ইতোমধ্যে বলে দিয়েছে, ব্যাংকসমূহ দেউলিয়া হয়ে যাবে। মানুষকে কচুরিপানা খেতে হবে। তারা বলে দিয়েছে, এ দেশে আর জনগণের ভোট দেয়ার প্রয়োজন নেই। তারা কৌশলে জনগণের ভোটাধিকার হরণ করেছে। আশা করেছিলাম, ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচনের পরে বিএনপি রাজপথে নামবে। দু’জন সম্ভাবনাময় তরুণকে আমরা নামিয়েছিলাম ভোটের মাঠে। তারা প্রাণপণ চেষ্টা করেছে। কিন্তু এই ফ্যাসিস্ট সরকারের প্রশাসনের দাপটের জন্য জনগণ ভোটকেন্দ্রে আসতে পারেনি।

দলের নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, যদি গণতন্ত্র চান যদি সিকিমের অবস্থা থেকে মুক্তি পেতে চান যদি আমাদের প্রাণপ্রিয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে চান তবে সব বাধাকে উপেক্ষা করতে হবে। রাজপথে দুর্বার আন্দোলনের মাধ্যমে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে আনতে হবে এবং এর মাধ্যমেই গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার হবে।

জাতীয়তাবাদী মুক্তিযুদ্ধের প্রজন্মের সভাপতি কালাম ফয়েজীর সভাপতিত্বে মানববন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, স্বনির্ভরবিষয়ক সম্পাদক শিরিন সুলতানা, নির্বাহী কমিটির সাদস্য বিলকিস ইসলাম, কৃষক দলের সদস্য লায়ন মিয়া মো. আ‌নোয়ার ও কে এম রকিবুল ইসলাম রিপন প্রমুখ।

এসএ/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: