বয়ঃসন্ধিকালে জরুরি খাবারগুলি

   
প্রকাশিত: ৯:৩২ পূর্বাহ্ণ, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০

বয়ঃসন্ধিকাল ছেলে ও মেয়ে উভয়ের শরীর ও মনে নানা ধরণের পরিবর্তন ঘটে। এ সময়ে ছেলেমেয়েরা যেমন দ্রুত বেড়ে উঠতে থাকে। তেমনি তাদের চিন্তা চেতনায় দেখা দেয় ব্যাপক পরিবর্তন। এ সময় সঠিক ও পুষ্টিকর খাবার বয়ঃসন্ধি ছেলেমেয়েদের শারীরিক ও মানসিক বিকাশ, এনার্জি লেভেল এবং অন্যান্য বডি প্রসেসে সাহায্য করে। কারণ এ সময় ওদের শারীরিক বৃদ্ধি খুব দ্রুত হয়। প্রতিদিন তাজা ফল ও সবজি, শস্যদানা, দুধ ও দুধজাতীয় খাবার এবং উচ্চমাত্রার প্রোটিনসমৃদ্ধ খাবার খাওয়া উচিত। এ সবের পাশাপাশি মাল্টি ভিটামিন খাওয়াও জরুরি। কেননা, মাল্টি ভিটামিন পুষ্টিকর খাবারের বিকল্প হিসেবে কাজ করে।

এসময় ছেলেমেয়েদের মধ্যে সময়মত খাবার না খাওয়ার প্রবণতাও বাড়ে। ঘরের খাবারের চেয়ে বাইরের খাবারের প্রতি তাদের বেশি আগ্রহ লক্ষ্য করা যায়। এসময় ছেলে-মেয়েদের খাবার দাবারের প্রতি অভিভাকদের অনেক বেশি সচেতন হওয়া উচিৎ। এই সময়ে প্রয়োজনীয় পুষ্টির অভাব পড়লে সন্তানের স্বাভাবিক বিকাশ ব্যাহত হয়। তাই তাদের পছন্দের খাবারকে যতটা সম্ভব স্বাস্থ্যকর করে বাড়িতেই তৈরি করে দিতে হবে।

সন্তানদের যতটা সম্ভব সবুজ শাক-সবজি, ফলমূল, সামুদ্রিক মাছ, দুধ ও ডিম খাওয়াতে হবে। অনেক ছেলেমেয়ে দুধ, ডিম খেতে চায় না। তাদেরকে সরাসরি দুধ ও ডিম না দিয়ে দুধ-ডিমের তৈরি বিভিন্ন ধরনের খাবার খাওয়ানো যেতে পারে। যেমন– দই, সিমুই, পুডিং প্রভৃতি। এছাড়া শক্তি বৃদ্ধিতে হরলিক্স বা কমপ্ল্যান জাতীয় খাবার খেতে দিতে পারেন। নিয়ম করে প্রতিদিন সেদ্ধ ডিম, সামুদ্রিক মাছ খাওয়াতে পারলে ভালো হয়। এছাড়া পর্যাপ্ত পরিমাণে শাক-সবজি খাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে। সুষম খাবার ও স্বাস্থ্যকর খাবার খেতে হবে। ঘরে তৈরি আটার রুটি, সজিব ও সতেজ ফল খাওয়ার অভ্যাস করতে হবে। দীর্ঘদিন ফ্রিজে রাখা খাবার ও কাঁচা লবণ না খাওয়াই ভালো।

অন্যদের সামনে অযথা মাথা চুলকানো, নাকে হাত দেয়া, আঙুল ফোটানো, শব্দ করে হাঁচি-কাশি দেয়া, আড়মোড়া ভাঙার মতো দৃষ্টিকটু বদঅভ্যাস ত্যাগ করতে হবে। এসব আচরণ ব্যক্তিত্বকে খাটো করে। কিশোর-কিশোরীর বয়ঃসন্ধিকালীন সময় তার শেখার ও জানার সময়। নিজের জীবন সম্পর্কে চারপাশের মানুষ পরিবার ও পরিবেশকে জানার এটাই উত্তম সময়। এর পাশাপাশি নিজের প্রতি বিশ্বাস রাখতে হবে যে আমি পারব আমাকে পারতে হবে। এই একুশ শতকের পৃথিবী উপযোগী করে নিজেকে গড়তে হবে। তবেই হব আমি বিজয়ী।

এআইআ/এইচি

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: