ভাইরাল মা ও ছেলের নজরকাড়া ক্রিকেট খেলা যে কারণে

   
প্রকাশিত: ২:২৩ অপরাহ্ণ, ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২০

ক্রিকেট পাগল জাতির তালিকা করলে বাংলাদেশের নাম শীর্ষেই থাকার কথা। ক্রিকেট এখানে কেবল একটি খেলা নয়; বরং তুমুল আবেগের জায়গা। বাংলাদেশে ক্রিকেট হলো ভালোবাসার আরেক নাম, লাল-সবুজ পতাকার সবচেয়ে বড় ব্র্যান্ড। সম্প্রতি এই সত্যের এক বড় উদাহরণ হয়ে এসেছে এক মা ও তার ছেলের ক্রিকেট খেলার কয়েকটি অনিন্দ্য সুন্দর ছবি, যা বিখ্যাত বানিয়ে দিয়েছে তাদের।

গেল শুক্রবার (১১ সেপ্টেম্বর) ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া ছবিতে দেখা যাচ্ছে, পাঞ্জাবি পায়জামা পরিহিত শিশু ছেলেটি বল নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। অপর প্রান্তে বোরকা পরিহিত মা ব্যাট করছে। পত্রিকার একজন ফটোগ্রাফারের ক্যামেরায় এমন দৃশ্য ধরা পড়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের কল্যাণে মুহূর্তেই তা ভাইরাল হয়ে যায়। মাদরাসা ছাত্র শেখ ইয়ামিন সিনান (১১) কবি নজরুল ক্রিকেট একাডেমিতে প্রশিক্ষণ নিতে আসে। শুক্রবারও সিনানকে ক্রিকেট প্রশিক্ষণের ক্লাসে নিয়ে এসেছিলেন মা ঝরনা আক্তার। কিন্তু তখনও বন্ধুরা কিংবা প্রশিক্ষক আসেননি। তাই ক্রিকেটপাগল শিশু সিনান মাকে নিয়েই নেট প্র্যাকটিস শুরু করে। বোরখা পরিহিতা মা ঝরনা আক্তারকে ব্যাটিংয়ে পাঠিয়ে কিছুক্ষণ বোলিং করে সে। শিশু সিনানের ছুঁড়ে দেওয়া বলের ঘূর্ণিতে ব্যাটসম্যান ঝরনা আক্তার পরাস্ত হলে সাকিব আল হাসানের মতোই উচ্ছ্বাসে ফেটে পড়ে সে। আর এই ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়ায় দেশজুড়ে হৈ চৈ পড়ে যায়।

ভাইরাল এ ছবিটি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে কাজী ইকরামুল হক নামে একজন লিখেছেন- ‘যারা পর্দাকে এগিয়ে যাওয়ার পথে প্রতিবন্ধকতা মনে করেন, সেই সব বিকৃত মস্তিষ্কের মানুষের জন্য এটা একটি দৃষ্টান্ত হতে পারে।’ জাহেদ আহমেদ চৌধুরী নামের একজন লিখেছেন, ‘এটা এ বছরের সবচেয়ে সেরা ছবি।’ মা-ছেলের সুন্দর এই মুহূর্তের ছবি শেয়ার করে অনেকেই লিখেছেন, একজন নারী যে সব পারে এই ছবিই সেটি প্রমাণ করে। সন্তানের স্বপ্ন পূরণে নিজেই মাঠে নেমেছেন। এমন মায়ের প্রতি শ্রদ্ধায় মাতা নত হয়ে আসে। উল্লেখ্য, বোরকাপরা নারী ঝরনা আক্তার এক সময়কার সফল অ্যাথলেট। তার ১১ বছরের ছেলের নাম শেখ ইয়ামিন আরামবাগের একটি মাদরাসার চতুর্থ শ্রেণীর শিক্ষার্থী।

আরএএস/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: