প্রচ্ছদ / বিনোদন / বিস্তারিত

ভারতের টিকটক স্টারদের কার কত আয়, জানলে চমকে যাবেন

   
প্রকাশিত: ৭:২৭ অপরাহ্ণ, ২ জুলাই ২০২০

বিশ্বের মধ্যে সবচেয়ে বেশি টিকটক ডাউনলোড হয়েছে ভারতে, ৩২কোটি ৩০ লাখ বার! যা বিশ্বের মোট টিকটক গ্রাহকদের ৪৪ শতাংশ। এই অ্যাপটি বন্ধ করে দেয়ার কারণে ভারতের বেশ কয়েকজন টিকটক স্টারের মাথায় হাত দেয়ার উপক্রম। আসুন যেনে নিই চীনা ভিডিও অ্যাপ টিকটক দিয়ে কতো আয় করতেন এসব ভারতীয়রা।

মঞ্জুল খট্টর:

টিকটকে নিজের ট্যালেন্ট দেখিয়ে বিপুল অর্থ উপার্জন করেছেন মঞ্জুল খট্টর। ভারতসহ বাংলাদেশ, পাকিস্তানেও জনপ্রিয় একজন টিকটক স্টার তিনি। প্রায় ১৪ কোটি ফলোয়ার রয়েছে তার। মঞ্জুলের বাড়ি হরিয়ানার গুরুগ্রামে। বাণিজ্যবিভাগ নিয়ে পড়াশোনা করেছেন। হেয়ারস্টাইলের জন্য টিকটকে বেশ জনপ্রিয় মঞ্জুল। শুধু ভিডিও পোস্ট করেই মাসে প্রায় ৫ লাখ টাকা আয় করেন মঞ্জুল।

গিমা আশি

টিকটক ব্যবহার করেন কিন্তু গিমা আশির মুখখানা চেনেন না এমন কেউ নেই। গিমা এক জন মডেল। টিকটকে ‘বহত হার্ড’ গানে নিজের একটি ভিডিও পোস্ট করে তুমুল জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন গিমা। সেই ভিডিও ৫০ লাখ বার দেখা হয়েছিল। দিল্লির এই মডেলের টিকটকে ১ কোটির ওপর ফলোয়ার রয়েছে। আর টিকটকে ভিডিও পোস্ট করে মাসে ৬ লাখ টাকা আয় করেন গিমা। ইনস্টাগ্রামেও কয়েক লাখ প্রচুর ফলোয়ার রয়েছে তার।

অবেজ দরবার

টিকটক স্টারদের মধ্যে অন্যতম নাম অবেজ দরবার। টিকটকে নিজের কমেডি ভিডিও পোস্ট করে বেশ জনপ্রিয় তিনি। তিনি একজন কোরিয়োগ্রাফারও। টিকটকে তার ফলোয়ারের সংখ্যা ২ কোটি। এই আপ থেকে অবেজের আয় মাসে ১৪ লাখ টাকা! অবেজের নিজের ইউটিউব চ্যানেল আছে। সেখানে তার ৩ লাখের মতো ফলোয়ার রয়েছে।

অবনীত কউর

অবনীত একজন টেলি অভিনেত্রী। ভারতের টিভি চ্যানেলে বেশ কয়েকটি সিরিয়ালে অভিনয় করেছেন। এছাড়া ডান্স ইন্ডিয়া ডান্স লিল মাস্টার, ডান্স কে সুপারস্টারস ইত্যাদিতে অংশ নিয়েছিলেন তিনি। সেই পরিচিতিকে কাজে লাগিয়ে টিকটকেও জনপ্রিয় হয়েছেন। টিকটকে তার ৫০ লাখের বেশি ফলোয়ার রয়েছে। সেখান থেকে অবনীত মাসে ১৬ লাখ টাকা আয় করেন।

জান্নাত জুবেইর

ভারতের টিকটকের সবচেয়ে বেশি আয় করেন জান্নাত জুবেইর। জান্নাত এক জন অভিনেত্রী। ২০১৯-এ ভারতে টিকটকে তার চেয়ে বেশি ফলোয়ার কারও ছিল না। তার টিকটকে ফলোয়ার সংখ্যা ১ কোটির বেশি। এখান থেকে নানা ভিডিও পোস্ট করে জান্নাতের মাসিক আয় ২ লাখের কাছাকাছি।

এসএ/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: