প্রচ্ছদ / জাতীয় / বিস্তারিত

ভিক্ষুক থেকে শিল্পপতি সবাই প্রধানমন্ত্রীর প্যাকেজে: তথ্যমন্ত্রী

   
প্রকাশিত: ১২:২৫ পূর্বাহ্ণ, ৬ এপ্রিল ২০২০

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষিত অর্থনৈতিক প্যাকেজকে যুগান্তকারী উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, সকল বিষয় বিবেচনায় নিয়ে বাংলাদেশের সকল মানুষ- ভিক্ষুক থেকে শুরু করে শিল্পপতি সবাইকে এই প্যাকেজের সহায়তার আওতায় এনে প্রধানমন্ত্রী যে ঘোষণা দিয়েছেন তা সর্বমহল কর্তৃক অভিনন্দিত হয়েছে। তিনি রবিবার (৫ এপ্রিল) তার সরকারি বাসভবনে ভিডিও কনফরেন্সে এসব কথা বলেন। ড. হাছান বলেন, ‘আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শখ হাসিনার ঘোষিত এ প্যাকেজের সঠিক বাস্তবায়নের মাধ্যমে বাংলাদেশ যেভাবে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জনে পৃথিবীর সামনে উদাহরণ সৃষ্টি করেছে, সেভাবে করোনাভাইরাস মোকাবেলায়ও পৃথিবীর সামনে উদাহরণ সৃষ্টি করতে পারবে।’

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মানুষের জীবিকাকেও রক্ষা করার জন্য আজ যে ঐতিহাসিক এবং সাহসী ঘোষণা দিয়েছেন- এটি আমাদের আশপাশের দেশ এমনকি ভারতের তুলনায় অনেক বড় প্যাকেজ। ভারতে তারা তাদের জিডিপির ০.৮ শতাংশ অর্থনৈতিক প্যাকেজ ঘোষণা করেছেন। আর বাংলাদেশে প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা করেছেন মোট জিডিপির ২.৫২ শতাংশ। যা ভারতের তুলনায় অনেক বড় প্যাকেজ। আওয়ামী লীগ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান বলেন, প্রধানমন্ত্রী যে প্যাকেজ ঘোষণা করেছেন সেটি হচ্ছে ৮.৬৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। ড. হাছান বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জীবন এবং জীবিকা দু’টি রক্ষার লক্ষ্যেই কাজ করছেন। তিনি করোনা ভাইরাস থেকে রক্ষার জন্য নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন।

তিনি বলেন, সঠিক সময়ে সঠিক পদক্ষেপ গ্রহণ করার কারণে এখনো পর্যন্ত আমাদের দেশে এই ভাইরাস নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। ভবিষ্যতে যে কোন পরিস্থিতি মোকাবেলায় সরকারের পক্ষ থেকে সব ধরনের প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী নেতৃত্বের কারণে অর্থনৈতিক সমৃদ্ধিতে বাংলাদেশ আজ পৃথিবীর সামনে উদাহরণ। সমস্ত আশংকার মধ্যেও প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশের খেটে খাওয়া মানুষ, ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী, অন্যান্য শিল্পপতিসহ সবাইকে এই প্যাকেজের আওতায় এনে যে অর্থনৈতিক প্যাকেজ ঘোষণা করেছেন যাকে বাংলাদেশের মানুষ সত্যিই প্রশংসা করছে।

ড. হাছান বলেন, প্রধানমন্ত্রী যে শুধু অর্থনৈতিক প্যাকেজ ঘোষণা করেছে তা নয়, ইতোমধ্যে সরকারের পক্ষ থেকে বিনা মূল্যে খাদ্য বিতরণ ও ১০ টাকা কেজি চাল বিক্রি শুরু হয়েছে। এছাড়াও প্রধানমন্ত্রী ৩০ লাখেরও বেশি পরিবারের কাছে ৬৮০ কোটি নগদ অর্থ বিতরণের জন্য পরিকল্পনা গ্রহণ করেছেন। তিনি বলেন, সর্বাধিক দরিদ্র্যপীড়িত ১০০টি উপজেলায় সকল বয়স্ক ও বিধবাকে ভাতা প্রদানের নির্দেশ দিয়েছেন।

বৈশ্বিস মন্দার আশঙ্কা, বাংলাদেশের অর্থনীতিতে এর সম্ভাব্য প্রভাবসহ সব বিষয়কে বিবেচনায় এনে সব মানুষ, ভিক্ষুক থেকে শুরু করে শিল্পপতি এই প্যাকেজের সহায়তার আওতায় এনে তিনি (শেখ হাসিনা) যে ঘোষণা দিয়েছেন তা সত্যি যুগান্তকারী। তিনি এই প্যাকেজের বিশ্লেষণ করে বলেন, ৭২ হাজার ৭৫০ কোটি টাকার যে প্যাকেজ ঘোষণা করা হয়েছে, এগুলোর মধ্যে অনেক রিভলভিং প্যাকেজ রয়েছে। এই প্যাকেজে ১ লাখ ৩৬ হাজার কোটি টাকারও বেশি অর্থায়ন সম্ভব। সত্যি এটি একটি ইনোভেটিভ ও যুগান্তকারী পদক্ষেপ।- বাসস

কেএ/ডিএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: