প্রচ্ছদ / রাজনীতি / বিস্তারিত

মদ্যপ অবস্থায় পুলিশের সাথে হাতাহাতি: ‘হু ইজ মাই ড্যাড? আমি মাহী বি চৌধুরীর ছেলে’

   
প্রকাশিত: ৬:৩৩ অপরাহ্ণ, ২৬ ডিসেম্বর ২০১৯

মদ খেয়ে গাড়ি চালাচ্ছিলেন এক যুবক। ট্রাফিক পুল্লিশ গাড়িটি থামালে ভয় না পেয়ে উল্টো পুলিশকেই মারতে শুরু করেন যুবকটি। মারতে মারতে চিৎকার করে বলতে থাকেন, তুমি জানো আমি কে? হু ইজ মাই ড্যাড? আমি মাহী বি চৌধুরীর ছেলে। এই কান্ডটি ঘটিয়েছেন বিকল্প ধারা বাংলাদেশের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সংসদ সদস্য মাহী বি চৌধুরীর ছেলে আরাজ বি চৌধুরীর বিরুদ্ধে। বুধবার (২৫ ডিসেম্বর) রাত ১০টার দিকে মদ্যপ অবস্থায় গাড়ি চালানোর সময় আটকানোয় বনানী কবরস্থান এলাকায় এটিএসআই (অ্যাসিস্ট্যান্ট টাউন সাব-ইন্সপেক্টর) মো. আলমগীর এবং কনস্টেবল তোফায়েল ও ফজলুর ওপর চড়াও হন আরাজ।

সহকারী সার্জেন্ট আলমগীর বলেন, ‘দুই যুবককেই নেশাগ্রস্ত মনে হওয়ায় আমি তাদের বলি- আপনি তো নেশাগ্রস্ত। এই কথা বলাতেই আরাজ বি চৌধুরী আমার গায়ে ফের হাত তোলেন এবং শার্টের কলার ধরে টানাটানি করেন। এক পর্যায়ে আমার শার্টের বোতাম ছিঁড়ে যায়।’ ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীরা মোবাইল ক্যামেরায় ভিডিও ধারণ করতে গেলে আরাজ চিৎকার করে বলতে থাকেন, ‘স্টপ ভিডিও, স্টপ ভিডিও। তুমি জানো আমি কে? হু ইজ মাই ড্যাড? আমি মাহী বি চৌধুরীর ছেলে।’

এটিএসআই আলমগীর বলেন, ‘বনানী কবরস্থান সংলগ্ন সড়কে আমি বেপরোয়া গতিতে চালানো গাড়ির ভিডিও করছিলাম। তখনই ওই যুবকের (আরাজ) গাড়িটি খুব দ্রুত প্রবেশ করে একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশাকে পেছন থেকে ধাক্কা দেয়। ওই ঘটনার পর তাকে (আরাজ) গাড়ি থেকে নামতে বলা হয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন আরাজ। তার সঙ্গে আরও এক যুবক ছিলেন। তারা গাড়ি থেকে নেমে আমাকে এবং উপস্থিত ট্রাফিক পুলিশের দুই কনস্টেবল তোফায়েল ও ফজলুকে মারধর করেন। পরিস্থিতি বুঝে নিকট দূরত্বে ডিউটিরত সিনিয়র সার্জেন্ট নাজমুল স্যারকে কল করে বিষয়টি জানালে তিনি ছুটে আসেন। এর মধ্যেই হাতাহাতি চলে।’

এসএ/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: