প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

সাইফুল মাহমুদ

সীতাকুন্ড, চট্টগ্রাম প্রতিনিধি

মরার পর কেউ পাশে নেই, লাশ রেখে এ্যাম্বুলেন্স চলে যায়!

   
প্রকাশিত: ১১:৩৮ অপরাহ্ণ, ৩ জুন ২০২০

চট্টগ্রামের মীরসরাইয়ের ওসমানপুর ইউনিয়নের সাহেবপুর গ্রামে ছালেহ আহম্মদ(৫৫) করোনা উপসর্গ নিয়ে নিজ বাড়িতে মারা যায়। বুধবার (৩ জুন) ফজর নামাজের পর তার লাশ গ্রামে নিয়ে আসে। সকালে নিহত সালেহ আহম্মদের লাশ গ্রামের আনার পর গ্রামের লোকজন নিহতের পরিবার লাশ এ্যাম্বুল্যান্স থেকে নামাতে বাঁধা দেয় ও আশ-পাশের মানুষ পালিয়ে যায়। লাশের সাথে তার বড় ভাই নুর আহমদ ছাড়া কেউ নাই। করোনায় মারা যাওয়া ছালেহ আহম্মদ দীর্ঘদিন কুয়েত প্রবাসী ছিল। গত ২ বছর পরিবার নিয়ে শহরে থাকত। মরার পর কেউ নাই। দুই স্ত্রী ও সন্তানরা কেউ আসেনি। লাশ বাড়িতে রেখে এ্যাম্বুলেন্স চলে যায়।

মীরসরাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুহুল আমিন বলেন, করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া সালেহ আহম্মদের লাশ দাফনে তার পরিবারের কেউ আসেনি। লাশের সাথে ছালেহ আহম্মদের বড় ভাই নুর আহম্মদ এসেছে। উপজেলা প্রশাসন ও মীরসরাইয়ের শেষ বিদায়ের বন্ধু নামে একটি সংগঠন তার লাশ দাফনের ব্যবস্থা করেছে।

কেএ/ডিএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: