মাত্র ৮,৫৯৯ টাকায় ৩-৬৪ জিবি র‌্যাম-রমে ওয়ালটনের নতুন ফোন

   
প্রকাশিত: ৪:৫৯ অপরাহ্ণ, ৬ আগস্ট ২০২০

বাজারে এলো বাংলাদেশি ব্র্যান্ড ওয়ালটনের সাশ্রয়ী মূল্যের নতুন স্মার্টফোন। যার মডেল ‘প্রিমো এইচএমফাইভ’। নজরকাড়া ডিজাইনের ফোনটিতে ব্যবহৃত হয়েছে ৩ জিবি র‌্যাম ও ৬৪ জিবি র‌্যাম, পেছনে ডুয়াল ক্যামেরা, শক্তিশালী ব্যাটারিসহ দুর্দান্ত সব ফিচার। এর দাম মাত্র ৮,৫৯৯ টাকা। এই বাজেটে বর্তমানে এটিকেই বাজারের সেরা ফোন বলছে ওয়ালটন।

ওয়ালটন মোবাইল ফোনের হেড অব সেলস আসিফুর রহমান খান বলেন, এন্ট্রি লেভেলের স্মার্টফোন ক্রেতাদের চাহিদা বিবেচনায় প্রিমো এইচএমফাইভ ফোনটির কনফিগারেশন ও মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে। এর ডিজাইন এবং ফিচার এমনভাবে সাজানো হয়েছে, যা স্মার্টফোনপ্রেমীদের মন কেড়ে নেবে। দেশের সব ওয়ালটন প্লাজা, মোবাইলের ব্র্যান্ড ও রিটেইল আউটলেট থেকে ফোনটি কেনা যাচ্ছে। পাশাপাশি ঘরে বসেই ওয়ালটনের নিজস্ব অনলাইন শপ ই-প্লাজা থেকে ফোনটি কেনার সুযোগ আছে। এটি মিডনাইট সায়ান, ব্ল্যাক এবং পার্পল- এই তিনটি ভিন্ন রঙে বাজারে ছাড়া হয়েছে।

এই স্মার্টফোনে ব্যবহৃত হয়েছে ৬.১ ইঞ্চির ইন-সেল এইচডি প্লাস ১৯:৯ রেশিওর ইউ-নচ আইপিএস ডিসপ্লে। পর্দার রেজ্যুলেশন ১৫৬০ বাই ৭২০ পিক্সেল। রয়েছে ২.৫ডি কার্ভড গ্লাসও। ফলে বিভিন্ন অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহার এবং ভিডিও দেখা, গেম খেলা, বই পড়া বা ইন্টারনেট ব্রাউজিং হবে আরো প্রাণবন্ত।

অ্যান্ড্রয়েড ১০ অপারেটিং সিস্টেমে পরিচালিত ফোনটির উচ্চগতি নিশ্চিত করতে রয়েছে ১.৮ গিগাহার্টজ গতির ১২ ন্যানোমিটার হেলিও এ২০ প্রসেসর। উন্নতমানের গেমিং ও স্পষ্ট ভিডিওর অভিজ্ঞতা দিতে ব্যবহৃত হয়েছে পাওয়ার ভিআর জিই৮৩০০ গ্রাফিক্স। ৩ জিবি র‌্যাম ও ৬৪ গিগাবাইট অভ্যন্তরীণ মেমোরির সঙ্গে ২৫৬ জিবি পর্যন্ত মাইক্রো এসডি কার্ড ব্যবহার করা যাবে। ফলে অনেক বেশি ছবি, ভিডিও, ডকুমেন্টস ইত্যাদি সংরক্ষণ করা যাবে।

এই স্মার্টফোনের পেছনে রয়েছে এলইডি ফ্ল্যাশযুক্ত ডুয়াল অটোফোকাস ক্যামেরা। এফ ২.০ অ্যাপারচার সমৃদ্ধ এই ক্যামেরায় ব্যবহৃত হয়েছে পিডিএএফ প্রযুক্তি। ১/৩.০৬ ইঞ্চি সেন্সরের ৫পি লেন্স সমৃদ্ধ ১৩ মেগাপিক্সেলের সনি কামেরায় ছবি হবে নিখুঁত উজ্জ্বল ও রঙিন। দুর্দান্ত সেলফির জন্য এই ফোনের সামনে আছে এফ ২.২ অ্যাপারচার সমৃদ্ধ ৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। উভয় পাশের ক্যামেরায় ফুল এইচডি ভিডিও ধারণ করা যাবে।

ক্যামেরায় নরমাল মোড ছাড়াও রয়েছে বোকেহ, বিউটি, কিউট মোড, ফেস ডিটেকশন, ডিজিটাল জুম, সেলফ টাইমার, অটো-ফোকাস, টাচ-ফোকাস, টাচ-শট, ফিংগার ক্যাপচার, ভলিউম ক্যাপচার, মিরর রিফ্লেকশনসহ আকর্ষণীয় সব ফিচার।
স্মার্টফোনটিতে ব্যবহৃত হয়েছে ৪৯০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের লিথিয়াম পলিমার ব্যাটারি। যা দেবে দীর্ঘক্ষণ পাওয়ার ব্যাকআপ।

ভিওএলটিই বা ভোল্টি নেটওয়ার্ক সাপোর্টসহ ডুয়াল সিমের ফোরজি স্মার্টফোনটির অন্যান্য ফিচারের মধ্যে রয়েছে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর, ডার্ক মোড, ফুল স্ক্রিন জেসচার নেভিগেশন, কাস্ট স্ক্রিন, ওয়াই-ফাই, ব্লুটুথ, ল্যান হটস্পট, ওটিএ, ওটিজি, ফুল এইচডি ভিডিও প্লেব্যাক ও রেকর্ডিংসহ এফএম রেডিও।

বাংলাদেশে তৈরি এই স্মার্টফোনে রয়েছে বিশেষ রিপ্লেসমেন্ট সুবিধা। স্মার্টফোন কেনার ৩০ দিনের মধ্যে ত্রুটি ধরা পড়লে ফোনটি পাল্টে ক্রেতাকে নতুন আরেকটি ফোন দেয়া হবে। এছাড়াও, ১০১ দিনে প্রায়োরিটি বেসিসে ৪৮ ঘন্টার মধ্যে ক্রেতা বিক্রয়োত্তর সেবা পাবেন। তাছাড়া, স্মার্টফোনে এক বছরের এবং ব্যাটারি ও চার্জারে ছয় মাসের বিক্রয়োত্তর সেবা তো থাকছেই।

এমআর/এনই

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: