এডিশনাল ডিআইজি ড. মো. আক্কাছ উদ্দিন ভূইয়া

মানুষ শান্তিতে ঘুমাবে আমরা জেগে থাকব তাদের নিরাপত্তায়

   
প্রকাশিত: ১০:১১ অপরাহ্ণ, ১৫ অক্টোবর ২০১৯

মো. খায়রুল আলম রফিক: মানুষ একেবারে নিরুপায় হয়েই থানায় যায়। পুলিশ হয়তো তার সব সমস্যার সমাধান নাও দিতে পারে, কিন্তু আগন্তকের কথাগুলো মনোযোগ দিয়ে শুনুন। তাকে কি করতে হবে বুঝিয়ে বলুন। ভালো ব্যবহার করুন। থানায় এসে হাসিমুখে মানুষ যেন কাঙ্খিত সেবা পান। এই প্রয়াস যেন অব্যাহত থাকে। থানা হবে মানুষের সেবার কেন্দ্র। ময়মনসিংহ বিভাগের প্রতিটি থানায় এমন বার্তা পৌঁছে দিয়েছেন অতিরিক্ত উপমহাপরিদর্শক (এডিশনাল ডিআইজি, ময়মনসিংহ রেঞ্জ) ড. মো. আক্কাছ উদ্দিন ভূইয়া।

সামাজিক, রাজনীতিক, পারিবারিক, অর্থনীতিক কোন ক্ষেত্রের দায়িত্বটি পালন করতে হয় না পুলিশ বাহিনীকে। শুধু এ বিষয়গুলোই নয়, স্বামী-স্ত্রীর পারিবারিক সমস্যা নিয়েও অভিযোগ আসে পুলিশের কাছে। এসব সমস্যা সমাধান পুলিশের একার পক্ষে কখনোই সম্ভব নয়। এজন্য চাই জনগনের সার্বিক সহযোগিতা। জনগণের সহযোগিতা ছাড়া বিশ্বের কোনো দেশেই পুলিশ বাহিনীর পক্ষে অপরাধ দমন করা সম্ভব নয়। এডিশনাল ডিআইজি. মো. আক্কাছ উদ্দিন ভূইয়া বিশ্বাস করেন, পুলিশই জনতা, জনতাই পুলিশ। এ ধারনা ও বিশ্বাস পেশাগত জীবনে বাস্তবায়নের মাধ্যমে জনগনের মাধ্যমে সুফল বয়ে আনতে সক্ষম হয়েছেন তিনি।

জনতার অংশ গ্রহণের মাধ্যমে ময়মনসিংহ রেঞ্জে জঙ্গি দমন, মাদক, সন্ত্রাস দমন, বাল্য বিয়ে রোধ থেকে সব ক্ষেত্রে সফলতা এসেছে। পুলিশের অন্যান্য বিভাগের তুলনায় ময়মনসিংহ রেঞ্জে এ ধরনের অভিযোগের ঘটনাও নগণ্য। অত্রাঞ্চলের মানুষের অভিযোগের বিষয়গুলো আমলে নিয়ে হটলাইন চালু আছে । যে কোন ভুক্তভোগী নাগরিক ইচ্ছে করলে প্রতিকার চাইতে পারেন। এরফলে রেঞ্জের জেলা ও থানার পুলিশ কর্মকর্তারা বেশ সচেতন।

নিজের মেধা ও পরিশ্রমে অল্প দিনেই তিনি নিজের এমন ইমেজ তৈরী করেছেন যা সকলের কাছে বিস্ময়কর। পেশাগত কর্মতৎপরতায় ময়মনসিংহ রেঞ্জে আইন শৃঙ্খলার পরিস্থিতি যথেষ্ট উন্নত করতে সফল হয়েছেন। জঙ্গি, সন্ত্রাস ও মাদক নির্মূলে সর্বদাই অনঢ় ড. মো. আক্কাছ উদ্দিন ভূইয়া পুলিশ বিভাগের ইমেজকেই দীপ্তমান করে চলেছেন। চেয়ে কঠিন কাজটি করছেন, পেশাদারিত্বের সাথে নৈতিকতার যুগলবন্দি ঘটিয়ে।

বিডি২৪লাইভকে দেয়া এক সাক্ষাতকারে ড. আক্কাছ উদ্দিন ভূইয়া বলেন, থানায় এসে মানুষ যদি ভালো ব্যবহার পায়, পুলিশের প্রতি মানুষ সন্তুষ্ট থাকবে। এতে পুলিশের ওপর মানুষের বিশ্বাস ও আস্থায় জায়গা আরও বাড়বে। মানুষকে সেবা দেওয়া পুলিশের একার পক্ষে সম্ভব হয় না মন্তব্য করে ড. আক্কাছ উদ্দিন ভূইয়া বলেন, পুলিশের পাশাপাশি জনগণকেও এগিয়ে আসতে হবে। অপরাধীদের বিষয়ে জনগণ যদি পুলিশকে তথ্য দিয়ে সহায়তা করে, তবে সেবার মান আরও উন্নত হবে।

ড. আক্কাছ উদ্দিন ভূইয়া বলেন, ‘আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায় আমরা জনবান্ধব পুলিশ গঠন করতে পেরেছি। যার ফলে ময়মনসিংহ রেঞ্জে অপরাধের মাত্রা এখন অনেক কম। জঙ্গিবাদ ও মাদকের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করার মাধ্যমে ময়মনসিংহ বিভাগবাসীকে নিরাপদে রেখেছি। নারীবান্ধব ও শিশুবান্ধব পুলিশ গঠন সুন্দর ব্যবহার করার মাধ্যমে আমরা মানুষের মন জয় করতে সক্ষম হয়েছি। পুলিশ নিয়ে অনেকের বিরূপ ধারণা থাকলেও নেত্রকোনা জেলার কেন্দুয়ার কৃতি সন্তান ময়মনসিংহ রেঞ্জ পুলিশের এডিশনাল ডিআইজি ড. মোঃ আক্কাছ উদ্দিন ভূইয়া সে ধারণা সম্পূর্ণ বদলে দিয়েছেন। প্রতিনিয়ত তিনি সহকর্মী ও সাধারণ জনগণের আদর্শগত ভিন্নতা মেনে নিয়ে পরস্পরের সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছেন। পুলিশ জনগণের বন্ধু। তিনি এই বাক্যটির উৎকৃষ্ট নিদর্শন। তিনি শুধু একজন পুলিশ কর্মকর্তাই নন পাশাপাশি অনেক সামাজিক কর্মকান্ডে তিনি অবদান রেখেছেন।

২০১৬ সালে সিলেট রেঞ্জ থেকে ময়মনসিংহের প্রথম রেঞ্জ পুলিশের এডিশনাল ডিআইজি হিসাবে যোগদানকারী ড. আক্কাছ উদ্দিন ভূইয়া তার দীর্ঘ কর্মজীবনে নরসিংদী জেলা পুলিশ সুপার, ময়মনসিংহ জেলা পুলিশের এডিশনাল এসপি (প্রশাসন) হিসাবেও দায়িত্ব পালন করেছেন । পুলিশে যোগদানের পর থেকেই তিনি একে একে অপরাধ দমনে সক্রিয় ভূমিকা পালন করে যাচ্ছেন। তার রেঞ্জের থানাগুলোকে মডেল থানায় রুপান্তর করেছেন। তিনি বলেন, বর্তমান সরকার গণমানুষের বন্ধু, সরকার আমাদের পাঠিয়েছেন মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে, মানুষের সাথে মিলেমিশে তাদের সুখ দুঃখ ভাগাভাগি করে নিতে। আমরা মানুষের অতন্ত্র প্রহরী আমাদের কাজ হচ্ছে দেশকে মাদক, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, চাদাঁবাজ, ইভটিজার মুক্ত করে মানুষের মাঝে শান্তি ফিরিয়ে আনা।

তিনি আরো বলেন, আমরা অতন্ত্র প্রহরী হিসাবে রাত জেগে থাকি শুধু জনগণ শান্তিতে ঘুমাবে বলে, আমাদের ঈদের ছুটিও নেই শুধু জনগণ যাতে তাদের এই ঈদকে সুন্দর, সুশৃঙ্খল এবং শান্তিতে কাটাতে পারে। কত পুলিশ অফিসার প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন দেশকে জঙ্গি, সন্ত্রাস মুক্ত করতে। আমি একটি কথা বলবো জনগণের উদ্দেশ্যে-আপনারা পুলিশকে নিজের বন্ধু ভাবুন, পুলিশ জনগণের বন্ধু।

এমআর/এনই

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: