মৃত্যুদণ্ড পাওয়া যুদ্ধাপরাধী কায়সারের মৃত্যু পরোয়ানা জারি

   
প্রকাশিত: ১২:০৫ পূর্বাহ্ণ, ২৩ অক্টোবর ২০২০

ছবি: সংগৃহীত

ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও হবিগঞ্জে মুক্তিযুদ্ধের সময় নির্বিচারে হত্যা, ধর্ষণের মতো মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে মৃত্যুদণ্ড পাওয়া সৈয়দ মোহাম্মদ কায়সারের মৃত্যু পরোয়ানা জারি করেছে ট্রাইব্যুনাল। চলতি বছরের ১৪ই জানুয়ারি ট্রাইব্যুনালের দেয়া ফাঁসির দণ্ড বহাল রাখে আপিল বিভাগ। তবে আসামি এই রায়ের বিরুদ্ধে রিভিউ আবেদন করতে করবেন। তবে পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশের ১৫ দিনের মধ্যে আবেদন না করলে যে কোনো দিন রায় কার্যকর হতে পারে।

রিভিউ আবেদন খারিজ হলেও অপরাধ স্বীকার করে রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষা চাইতে পারবেন সৈয়দ কায়সার। তিনি যদি প্রাণভিক্ষা না চান এবং চেয়েও যদি ক্ষমা না পান, তাহলে রায় কার্যকরের ক্ষণগণনা শুরু হবে। রায় কার্যকরের আগে তিনি শেষবারের মতো পরিবারের সঙ্গে সাক্ষাতের সুযোগ পাবেন।

২০১৪ সলের ২৩শে ডিসেম্বর নির্বিচারে হত্যা, অপহরণ, নির্যাতন, দুই নারীকে ধর্ষণসহ সাতটি অভিযোগের মধ্যে ৪টি অপরাধে কায়সারকে মৃত্যুদণ্ড দেয় ট্রাইব্যুনাল। বাকি তিনটি অভিযোগে আরও ২২ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়। আপিলের রায়ে তিনটি অভিযোগে কায়সারের মৃত্যুদণ্ড বহাল রাখা হয়। তিনটি অভিযোগে তার প্রাণদণ্ডের সাজা কমিয়ে আমৃত্যু কারাদণ্ড দেয়া হয়। এই মামলায় দুই বীরাঙ্গনার মধ্যে একজন এবং তার গর্ভে জন্ম নেয়া এক যুদ্ধশিশুও সাক্ষ্য দিয়েছেন।

 

কেএ/ডিএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: