প্রচ্ছদ / জাতীয় / বিস্তারিত

নুরুল আমিন

রাঙ্গামাটি প্রতিনিধি

মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে ৯,আক্রান্ত প্রায় দুই শতাধিক শিশু

   
প্রকাশিত: ৩:২১ অপরাহ্ণ, ১ এপ্রিল ২০২০

রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলার সাজেক ইউনিয়নের দুর্গম শিয়ালদহ মৌজায় এলাকায় গত এক মাসে হাম রোগে আক্রান্ত হয়ে ৮ শিশুর মৃত্যুর পর হাম রোগে আক্রান্ত হয়ে নিকেতন চাকমা (১৫) নামে আরও এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। এনিয়ে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৯ জনে। আক্রান্ত প্রায় দুই শতাধিক শিশু। এর আগে বেশ কয়েকদিনে সাজেক ইউনিয়নের দূর্গম এগারো গ্রামে নতুন করে আরও দেড় শতাধিক শিশু হামে আক্রান্ত হয়েছে। গত মঙ্গলবার রাতের দিকে সাজেক ইউনিয়নের দুগর্ম বেটলিং এলাকায় এ ঘটনা ঘটে । বুধবার দুপুরে বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন, সাজেক ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নেলসন চাকমা ।

তিনি জানান, সাজেকের দুর্গম এলাকাগুলোতে হামের প্রার্দুভাব বেড়ে যাওয়ায় সেনাবাহিনী,বিজিবি ও স্বাস্থ্য বিভাগ নিয়মিত চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছে। এর মধ্যে চিকিৎসাধীন অবস্থায় এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে ।

স্থানীয় জনপ্রতিনিধির সাথে কথা বলে জানা গেছে, করোনা ভাইরাসের আতঙ্কের মধ্যে পাহাড়ে হাম রোগের প্রকোপ দেখা দিয়েছে। এই আতঙ্কের মধ্যে হাম রোগ প্রতিরোধ করতে হিমশিম খাচ্ছে চিকিৎসকরা। বেড়েই যাচ্ছে মৃত্যু ও আক্রান্তের সংখ্যা। প্রতিনিয়িত চিকিৎসা সেবা চললেও এই রোগে বেশি ভাগেই শিশু আক্রান্ত হচ্ছে। এ নিয়ে জনমনে এলাকাজুড়ে আতঙ্ক বিরাজ করছে বলে তারা জানান।

বাঘাইছড়ি উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা মো. ইফতেখার আহমেদ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মঙ্গলবার রাতে সাজেকের দুর্গম বেটলিং এলাকায় নিকেতন চাকমা নামে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। এলাকাটি দুর্গম হওয়ায় মৃত্যু খবরটি বুধবারে পেলাম। ঐ এলাকায় আরও ৫ শিশু মুমূর্ষ অবস্থায় আছে। তাদের নিয়ে আসা হবে। তিনি আরও জানান, প্রতিনিয়ত দু’টি মেডিকেল টিম সর্বক্ষণ ঝুঁকিপূর্ণ গ্রামগুলোতে আক্রান্ত শিশুদের চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছে। আমরা আমাদের পক্ষ থেকে চিকিৎসা সেবা দিয়ে যাচ্ছি।

এর আগে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সর্বশেষ ২৩ মার্চ প্রাণ হারায় সাজেক ইউনিয়নের লুঙথিয়ান পাড়ার খেতবালা ত্রিপুরা (১৩) নামে এক শিশু। ২২ মার্চ প্রাণ হারায় গোরাতি ত্রিপুরা (৯)। এর আগেই প্রাণ হারায় ৬ জন শিশু। এসময় আক্রান্ত ছিল ১১৯ জন শিশু। পরে অরুণপাড়াসহ পাঁচটি গ্রামে হামে আক্রান্ত শিশুদের চিকিৎসা ও সেবা দেয়া হয়। আক্রান্ত শিশুদের শরীর থেকে নমুনা সংগ্রহ করে পাঠানো হয়েছে, ঢাকা স্বাস্থ্য অধিদফতরের পরীক্ষাগারে। পরীক্ষায় হাম সনাক্ত হয় এবং ২৫ মার্চ উন্নত চিকিৎসার জন্য ৫ শিশুকে হেলিকপ্টারে করে চট্টগ্রাম মেডিকেল হাসপাতালে প্রেরণ করেন, সেনাবাহিনী ও বিজিবি’র সদস্যরা। বাঘাইছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আহসান হাবিব জিতু জানান, আক্রান্ত শিশুদের উন্নতমানের পুষ্টি জাতীয় খাবার পরিবেশন করা হচ্ছে।

এআইআ/এইচি

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: