প্রচ্ছদ / স্পোর্টস / বিস্তারিত

মোদীকে আক্রমণাত্মক কথা বলে সমালোচনার মুখে আফ্রিদি

   
প্রকাশিত: ৭:০৯ অপরাহ্ণ, ২৪ মে ২০২০

বরাবরই বিতর্ক তৈরি করতে ভালোবাসেন শাহিদ আফ্রিদি। নিয়ম করে নেতিবাচক কারণে শিরোনামে উঠে আসেন তিনি। সেই শাহিদ আফ্রিদি ফের একবার উত্তেজনা ছড়িয়ে ছিলেন কাশ্মীর থেকে পিএসএলে ফ্র্যাঞ্চাইজি নামানোর জন্য পিসিবিকে আর্জি জানিয়ে। এর সঙ্গে ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকেও কড়া সমালোচনা করেন পাক তারকা। এবার তাকে ভর্ৎসনা করলেন জম্মু-কাশ্মীরের বিজেপি প্রধান রবীন্দ্র রায়না। রায়না বলেন, ভারতের বিরুদ্ধে আফ্রিদির কাণ্ডজ্ঞানহীন মন্তব্য বন্ধ করা উচিত। আমরা জানি, সে খেলোয়াড়ি জীবনে হতাশ ও মরিয়া ক্রিকেটার ছিল। শচীন টেন্ডুলকার, সৌরভ গাঙ্গুলী, বীরেন্দ্র শেবাগ এবং রাহুল দ্রাবিড়ের ব্যাটিংয়ের সময় বোলিংয়ে এসে প্রায়ই পরাস্ত হতো ও। সেটা এখনও ভুলতে পারেনি পাক অলরাউন্ডার।

তিনি আরও বলেন, ১৯৬৫ সালে পাক-ভারত যুদ্ধে লাহোর, করাচি ও ইসলামাবাদে নিজেদের পতাকা উড়িয়েছে ভারতীয় সেনারা। সেই তারাই ১৯৭১ সালে পাকিস্তান ভেঙে বাংলাদেশ নামে নতুন রাষ্ট্রের সৃষ্টি করেছে। ১৯৯৯ সালে কাশ্মীরের কারগিলে গোপনে অভিযান চালিয়েছিল পাক ফৌজরা। তবে, তাদের পিটিয়ে তাড়িয়ে দেয় আমাদের সাহসী সন্তানরা।

সম্প্রতি পাকিস্তান অধিকৃত কাশ্মীরে ত্রাণ বিতরণ করতে যান আফ্রিদি। সেখানে গিয়ে চাঁচাছোলা ভাষায় ভারতের প্রধানমন্ত্রী মোদীকে একহাত নেন তিনি। সাবেক পাক অধিনায়ক দাবি করেন, কাশ্মীরী ভাই-বোনদের জোর করে নিজেদের কব্জায় রেখেছে ভারতীয় সরকার। তাদের বেশিরভাগই পাকিস্তানের নিয়ন্ত্রণে থাকতে চায়। করোনার চেয়েও বড় রোগ বাসা বেঁধেছে মোদীর মনে। ধর্ম নিয়ে রাজনীতি করছেন উনি।

আফ্রিদির ইট মারার জবাব দ্রুত পাটকেল ছুড়ে দেন টিম ইন্ডিয়ার সাবেক ও বর্তমান ক্রিকেটাররা। সেই তালিকায় আছেন গৌতম গম্ভীর, হরভজন সিং, যুবরাজ সিং, সুরেশ রায়না, শিখর ধাওয়ানরা। তাকে কাশ্মীরের আশা ছেড়ে দিতে বলেন তারা। বরং পাকিস্তানি সুপারস্টারকে পিছিয়ে পড়া নিজ দেশের উন্নয়নে মনোনিবেশ করতে বলেন সবাই।

কেএ/ডিএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: