প্রচ্ছদ / স্পোর্টস / বিস্তারিত

ম্যাচ হারার কারণ ব্যাখ্যা করলেন সাকিব

   
প্রকাশিত: ৯:০৪ পূর্বাহ্ণ, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯

বিশ্বকাপের প্রথম ম্যাচের পর থেকেই পরাজয়ের ঘূর্ণিপাকে বাংলাদেশ। ত্রিদেশীয় সিরিজের প্রথম ম্যাচে জিম্বাবুয়েকে হারিয়ে হারের বৃত্ত ভেঙেছিল তারা। ঠিক পরের ম্যাচেই ফিরে এলো আগের রূপে। আফগানিস্তানের সামনে পড়তেই যেন লেজ গুটিয়ে আত্মসমর্পণ করলেন টাইগাররা।

ত্রিদেশীয় সিরিজের তিন ম্যাচ শেষে দুটি জয়ে শীর্ষে আফগানরা। বাংলাদেশের জয় একটি, জিম্বাবুয়ে এখনো জয়শূন্য। এখনো ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে খেলা সম্ভব বলে মনে করেন বাংলাদেশের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান।

আগামীকাল থেকে শুরু হবে চট্টগ্রাম পর্ব। কাল ফিরতি ম্যাচে জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে মাঠে নামবে বাংলাদেশ। ফাইনালে খেলার সম্ভাবনা নিয়ে সাকিব বলেছেন, ‘এখনো দুটি ম্যাচ আছে। আমরা চিন্তা করি, জিম্বাবুয়ে যেহেতু দুটি ম্যাচের দুটিতেই হেরে গিয়েছে, তাই ওদের জন্য কঠিন। তিনটি দলের দুটি যদি ফাইনাল খেলে, তাহলে এখনো আমি বলব যে আমাদের ফাইনালে যাওয়া উচিত। আর আমি মনে করি, আমাদের দলের সেই সক্ষমতা অবশ্যই আছে।’

টানা ব্যর্থতায় বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের আত্মবিশ্বাস এখন তলানিতে, তা স্বীকার করেছেন অধিনায়ক সাকিব। তিনি বলেছেন, ‘আত্মবিশ্বাস যেহেতু নিচুতে, সে কারণে মাইন্ড সেটটাও ক্লিয়ার না। একটা আরেকটার পরিপূরক বলতে পারেন।’

তবে রোববার ম্যাচ হারের পেছনে অতিরিক্ত রান ও তাইজুলের নো বলকে দায়ী করেছেন বাংলাদেশ অধিনায়ক। ম্যাচ শেষে সংবাদ সম্মেলনে সাকিব বলেছেন, ‘আমাদের অতিরিক্ত রান অনেক ভুগিয়েছে। ১৫-১৬ রান অরিতিক্ত দিয়েছি আমরা। ওখানেই আসলে পেছনে পড়ে গিয়েছি। আপনি যদি সেই ১৫-১৬ অতিরিক্ত রান বাদ দেন এবং যে সুযোগগুলো আমরা মিস করেছি, তাইজুলের যে ওভারটিতে রানটি গেল, সেই ওভারে হয়তো ৫-৬ রান হতো, তবে উইকেট পড়ত, মোমেন্টাম আমাদের দিকে থাকত। সেখানে এ ওভারে ১৭ রান হয়েছে। এগুলো আসলে ম্যাচের টার্নিং পয়েন্ট থাকে।’

বাঁহাতি এই অলরাউন্ডার আরও বলেন, ‘টি-২০তে অবশ্যই ওরা বড় দল। র‌্যাংকিংয়ে ওরা ৭ নম্বরে। আমাদের ওপরে আছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও শ্রীলঙ্কা, যাদের সঙ্গে আমরা মাঝে মাঝে জিতি আর মাঝে মাঝে হারি। যেহেতু ওরা র্যাং কিংয়ে এগিয়ে, তাই ওদের সঙ্গে জিততে আমাদের কষ্টই হয়। এটি দেরাদুনেও ছিল এবং আজকেও (গত রোববার) সেটা প্রমাণ হয়ে গেল।’

আরএএস/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: