প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

মনজুরুল ইসলাম

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি

ময়মনসিংহে জামায়াতুল মুজাহিদীন’র ৪ জঙ্গি সদস্য গ্রেফতার

   
প্রকাশিত: ৪:৪৫ অপরাহ্ণ, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০

ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়া থেকে নিষিদ্ধ ঘোষিত জেএমবি জামায়াতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশ’র ৪ সক্রিয় সদস্য গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-১৪। এ সময় তাদের কাছ থেকে উগ্রবাদী বই, লিফলেট, ০১টি ল্যাপটপ এবং ০২টি মোবাইল উদ্ধার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, মো. জাকির হোসেন (৫০) পিতা মো. আবুল হোসেন বুলবুল, মো. আক্কাছ আলী (৫৫) পিতা মৃত হাজী আলতাফ আলী মন্ডল, মোঃ হারুন (৩৫) পিতা মৃত আব্দুল কাদের, মো. ওসমান গনি মল্লিক (৪৮) পিতা মৃত আবুল হাসেম। গ্রেপ্তারকৃত প্রত্যেকে জেলার ফুলবাড়িয়া উপজেলার বাসিন্দা।

রবিবার (২৭ সেপ্টেম্বর) বেলা আড়াইটার দিকে ময়মনসিংহ র‌্যাব-১৪ এর কার্যালয় থেকে পাঠানো এক প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়।

এর আগে শনিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) দ্বিবাগত মধ্যরাতে জেলার ফুলবাড়ীয়া জোরবাড়ীয়া গ্রামের মো. আবুল হোসেন বুলবুলের বাড়ি থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

র‌্যাব-১৪’র সিনিয়র এএসপি জোনায়েদ আফ্রাদ বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিকে জানতে পারেন, যে ফুলবাড়ীয়া জোরবাড়ীয়া গ্রামের মো. আবুল হোসেন বুলবুলের বাড়ি কয়েকজন জঙ্গি নাশকতার পরিকল্পনা করছেন। এমন সংবাদের র‌্যাব-১৪ অভিযান চালালে পালিয়ে যাওয়ার সময় ৪ জনকে গ্রেফতার করে।

তিনি বলেন, গ্রেফতারকৃতদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে যে, দীর্ঘদিন যাবৎ তারা বিভিন্ন উগ্রবাদী বক্তার বয়ান শুনতো এবং এইসব শুনে তারা উগ্রবাদের প্রতি উদ্ভুদ্ধ হয়ে জঙ্গি সমর্থক হয়ে উঠে। গ্রেফতারকৃতরা নিজেদেরকে জেএমবি এর সক্রিয় সদস্য হিসাবে পরিচয় দেয়।

তিনি আরও বলেন, আসামীরা নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠনের জন্য বিভিন্ন কৌশলে কাজ করতো এবং মসজিদসহ বিভিন্ন জায়গায় গোপনে বৈঠক করে উগ্রবাদী ও নাশকতামূলক তালিম প্রদান করত এবং সংগঠনের জন্য নিয়মিত চাঁদা তুলে সংগঠনের তহবিল সংগ্রহে ভূমিকা রাখত।

এই তহবিল তারা বর্তমানে যেসব জেএমবি সদস্য জেলে বন্দী আছে তাদের হাজত থেকে বের করে এনে নতুনভাবে নাশকতা কার্যক্রম শুরু করাসহ সংগঠনের অন্যান্য খরচ বহন করার কাজে ব্যবহার করতো। উগ্রবাদ কায়েম করার লক্ষ্যে তারা দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে নাশকতা করার পরিকল্পনা করছিল বলে স্বীকার করেন তারা।

এমআর/এনই

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: