প্রচ্ছদ / স্পোর্টস / বিস্তারিত

রেদওয়ান শাওন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

যে ছোট্ট ভুলের জন্য মাশরাফি’র খেলা হয়নি ২০১১-এর বিশ্বকাপ

   
প্রকাশিত: ৫:২০ অপরাহ্ণ, ২৪ মে ২০২০

২০১১ সালে নিজ ঘরের মাঠে বিশ্বকাপ, অথচ ইঞ্জুরির জন্য খেলা হয়নি তার। দেশের জন্য সারাজীবন লড়াই করে যাওয়া মানুষটা সেই কষ্টে ভেঙে পড়েছিল সাংবাদিক বন্ধুদের সামনে। সেদিন টিভি সেটের সামনে তাকে কাঁদতে দেশে লাখো ক্রিকেটভক্ত কেঁদে উঠেছিল। কিন্তু এটাই ভাগ্য, এটাই ক্রিকেট। বলছিলাম দেশের ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম সেরা অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজার কথা। তবে এবার জানা গেল ২০১১ সালের বিশ্বকাপে একটি ছোট্ট ভুলের জন্য খেলা হয়নি মাশরাফির। দলের তৎকালীন ফিজিও মাইকেল হেনরির এক ছোট্ট ভুলে মাশরাফির জীবন থেকে ফসকে যায় পুরো একটি বিশ্বকাপ!

দেশের কোটি কোটি ক্রিকেট ভক্তদের কিছু সময়ের জন্য আনন্দ দিতে একটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ভিত্তিক লাইভ শো’র আয়োজন করেছে বর্তমান বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট ওয়ানডে দলের অধিনায়ক তামিম ইকবাল। লাইভ শো’টির শেষ পর্বে গতকাল শনিবার (২৩ মে) ক্রিকেটভক্তদের সাথে সময় কাটাতে যোগ দিয়েছিলেন দেশের ক্রিকেটের চার স্তম্ভ মাশরাফি, তামিম, মুশফিক ও মাহমুদুল্লাহ। সেখানেই ২০১১ সালে নিজের দুর্ভাগ্য নিয়ে জানান নড়াইল এক্সপ্রেস খ্যাত এই বোলার। মাশরাফি বলেন, ‘আমি কি জন্য বলি আল্লাহ যা করে ভালোর জন্য করে। যখন ডেভিড ইয়াং রিপোর্টটা পাঠিয়েছিল আমাদের তখনকার ফিজিও মাইকেল হেনরির কাছে দূর্ভাগ্যজনকভাবে ও যখন সেটা লিখে পাঠায় তখন পুরো মেইলটা ওর কাছে আসেনি। মেইলটা যখন আসছে রিড মোর অপশন থাকে সে ঐ অপশনে যায়নি। ও উপরেরটুকু দেখেই ওটা নির্বাচকদের কাছে লিখে পাঠিয়ে দেয়। এরপর আমি ডাক্তারের (ডেভিড ইয়াং) সাথে ফোনে কথা বলি যে তুমিতো বললা অপশনটা আমার হাতে, আমি খেলতে পারবো তবে খেলতে গিয়ে লিগামেন্ট ছিঁড়ে গেলে পুরো দায়ভার আমার। সেখানে মেইলে এমন কিছু আসেনি কেন?’ ডেভিড ইয়াং ঠিক মেইলই পাঠিয়েছিলেন, তবে সেই ফিজিও অর্ধেক রিপোর্ট দেখেই নির্বাচকদের বিস্তারিত জানিয়েছিলেন। আর তাতেই ভেস্তে যায় মাশরাফির বিশ্বকাপ খেলার আশা। সেই বিশ্বকাপ নিয়ে এখনও আক্ষেপ আছে মাশরাফির। তবে সেই ফিজিওকে নিয়ে কোনো অভিযোগ নেই বাংলাদেশের অন্যতম সেরা এই অধিনায়কের। মাশরাফি আরও বলেন, ‘তখন সে (ইয়াং) বলল নাহ, আমিতো পুরোটাই লিখে পাঠিয়েছি। তখন আমি হেনরিকে বললাম, সে বলল দেখ তুমি মোবাইল চেক করো। পরে আমি যেটা দেখলাম সে (মাইকেল হেনরি) আর নীচের অপশনে যায়নি। এরপর সে আমাকে সরি বলেছে। কিন্তু ওর সাথে তখন আর ঝামেলা করেতো লাভ নাই। মূলত আমি যেটা বললাম আমার ফ্যামিলিকে ব্যাক পাবো দেখেই এসব আমার সাথে ঘটেছে।’

তামিমের লাইভ শো’তে এখন পর্যন্ত যেসব মহাতারকারা এসেছেন-
মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (ইনস্টাগ্রাম), মাশরাফি বিন মর্তুজা, রুবেল হোসেন ও তাসকিন আহমেদ (বিশেষ অতিথি নাসির হোসেন), খালেদ মাহমুদ সুজন, নাইমুর রহমান দুর্জয় ও হাবিবুল বাশার সুমন, ফাফ ডু প্লেসিস, রোহিত শর্মা, লিটন দাস, মুমিনুল হক ও সৌম্য সরকার (বিশেষ অতিথি তাইজুল ইসলাম), ভিরাট কোহলি ও খালেদ মাসুদ পাইলট, আকরাম খান ও মিনহাজুল আবেদিন নান্নু (বিশেষ অতিথি ওয়াসিম আকরাম) ও কেন উইলিয়ামসন।

আরএএস/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: