যে স্বপ্নগুলো দেখলে বুঝবেন মৃত্যু খুব কাছাকাছি

   
প্রকাশিত: ১২:২১ পূর্বাহ্ণ, ২৭ নভেম্বর ২০২০

ঘুম প্রতিটি মানুষের জন্যই জরুরি। আর ঘুমালে স্বপ্ন দেখাটাও স্বাভাবিক। জানেন কি, প্রতিটি স্বপ্নেরই আলাদা ব্যাখ্যা রয়েছে। আপনার দেখা স্বপ্নের বিশ্লেষণ করেও শরীর সম্পর্কিত একাধিক অজানা বিষয় জেনে ফেলা সম্ভব। এমনকি মৃত্যু কখন আসছে সে সম্পর্কেও! প্রশ্ন থাকতে পারে, স্বপ্ন আসলে কী? সহজ কথায় বলতে হলে স্বপ্ন হলো এক ধরনের গল্প, যা মস্তিষ্কের কোনো এক অজানা কেরামতির কারণে ঘুমানোর সময় আমাদের মনের পর্দায় ফুটে ওঠে। স্বপ্ন আনন্দময় বা দুঃখে ভরা যে কোনো রকমের হতে পারে। কেন কেউ স্বপ্ন দেখে, সে সম্পর্কে এখনো পর্যন্ত স্পষ্ট কোনো তথ্য জানা যায়নি। তবে বিশেষজ্ঞরা একটা বিষয়ে একমত হয়েছেন যে, স্বপ্নের সঙ্গে আমাদের শরীর এবং বর্তমান অবস্থার একটা গভীর যোগ থাকে। তাই এমন কোনো কিছু যা খারাপ তা ঘুমনোর সময় দেখলে সাবধনা হন। প্রয়োজনে চিকিৎসকের সঙ্গে আলোচনা করুন।

চলুন এবার জেনে নেয়া যাক সাধারণত যে যে স্বপ্নগুলো আগাম মৃত্যু নিকটে বলে ইঙ্গিত দেয়-
খাবার খাচ্ছেন পেট পুরে: স্বপ্নে কব্জি ডুবিয়ে খেতে দেখা ভালো লক্ষণ নয়। এমন খাওয়া-দাওয়ার স্বপ্ন দেখা মোটেও ভালো নয়। এমন কিছু দেখার অর্থ হলো মৃত্যু খুব কাছাকাছি চলে এসেছে।

বেড়াতে যাওয়া মানা: ধরুন আপনি আগামী কাল কোথাও বেড়াতে যাচ্ছেন। এদিকে আজ রাতে আপনার পরিবারের কোনো সদস্য এই বেড়াতে যাওয়া নিয়ে কিছু স্বপ্ন দেখেছেন, তাহলে আপনার ট্রিপ ক্যানসেল করা উচিত। কারণ এমন ধরনের স্বপ্ন দেখার অর্থ হলো মারাত্মক খারাপ কিছু হতে চলা।

কাক বা তেল: সেই প্রচীনকাল থেকেই মানা হয়ে থাকে কাক মানেই অশুভ কিছু। সেই কারণেই স্বপ্ন নিয়ে নাড়াচাড়া করা স্পেশলিস্টদের মতে কাককে নিয়ে কোনো স্বপ্ন দেখা মোটেই ভালো নয়। কারণ কাক মৃত্যুর সমার্থক। একইভাবে স্বপ্নে তেল সম্পর্কিত কিছু দেখলেও ভয়ের বিষয়।

বাজছে ড্রাম দ্রিম দ্রিম: চারিদিকে কেউ নেই। শুধু একটা আবছা অবয়ব নিজের মনে কোনো একটা বাদ্যযন্ত্র বাজিয়ে চলেছে। এমন স্বপ্ন কি মাঝে-মধ্যেই দেখেন? তাহলে সাবধান! কারণ স্বপ্ন নিয়ে গবেষণা করা বিশেষজ্ঞদের মতে ঘুমানোর সময় ড্রামের মতো কোনো কিছু বাজাতে দেখা একেবারেই শুভ নয়। এটা হতে পারে শেষ লগ্নের বাদ্যি! তাই সাবধান!

কেএ/ডিএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: