প্রচ্ছদ / জাতীয় / বিস্তারিত

রাজনৈতিক দল নিবন্ধনে নতুন আইন

   
প্রকাশিত: ২:২৫ অপরাহ্ণ, ৬ জুন ২০২০

রাজনৈতিক দল নিবন্ধনে নতুন আইন প্রণয়নের উদ্যোগ নিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। ইতোমধ্যে এ সংক্রান্ত একটি খসড়াও তৈরি করে কমিশন সভায় তোলা হয়েছে। এতে ২০২০ সালের মধ্যে নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলগুলোর সব পর্যায়ের কমিটিতে ৩৩ শতাংশ নারী নেতৃত্ব বাধ্যবাধকতার শর্ত শিথিল করার প্রস্তাব করা হয়েছে।

এদিকে নতুন এ আইন করতে গিয়ে গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ (আরপিও) ১৯৭২ এ আবার সংশোধনী আনতে যাচ্ছে কমিশন। গত সোমবার (১ জুন) কমিশনের সভায় এসব বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়। ওই সভায় একজন কমিশনার রাজনৈতিক দলগুলোর নিবন্ধন দুই বছর পর পর পর্যালোচনা করার বিধান অন্তর্ভুক্তের প্রস্তাব করেন। ইসির সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে ইসির সিনিয়র সচিব মো. আলমগীর গণমাধ্যমকে বলেন, রাজনৈতিক দল নিবন্ধন সংক্রান্ত আলাদা আইন প্রণয়নের বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। তবে বড় কোনো পরিবর্তন আসছে না। আরপিওতে যেসব বিধান থাকছে সেগুলোর বাংলা ভাষায় রূপান্তর করা হচ্ছে। নতুন আইন করলে রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে আলোচনা করা হতে পারে বলেও জানান তিনি।

আগামীতে পর্যায়ক্রমে রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে আলোচনা সাপেক্ষে সিদ্ধান্ত নেবে কমিশন। সরাসরি বা চিঠি দিয়ে কিংবা ওয়েবসাইটের মাধ্যমে রাজনৈতিক দলগুলোর মতামত নেওয়া হবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি। প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদার সভাপতিত্বে ইসি সচিবালয়ে কমিশনের ৬৩তম সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভার এজেন্ডায় গণপ্রতিনিধিত্ব আইন, ২০২০ এর খসড়া বিল অনুমোদন, রাজনৈতিক দলের নিবন্ধন আইন প্রণয়ন, নির্বাচন কমিশন কর্তৃক প্রণীত আইন বাংলা প্রণয়ন, জাতীয় সংসদ ও স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানসমূহের স্থগিত নির্বাচনের ওপর আলোচনা ও সিদ্ধান্ত প্রহণ ও জাতীয় সংসদের সংসদীয় আসনের সীমানা নির্ধারণ আইন আইন ২০২০ এজেন্ডায় ছিল।

সভায় এজেন্ডাভুক্ত এসব বিষয়ে আলোচনা হলেও কোনও সিদ্ধান্ত ছাড়া বৈঠক শেষ হয়। ওই বৈঠকে করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে যেসব নির্বাচন আটকে আছে সেগুলোর তথ্য উপস্থাপন করতে ইসি সচিবালয়কে নির্দেশনা দেওয়া হয়। বৈঠকে উপস্থিত কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা নিজেই নতুন আইনের খসড়া তৈরি করেছেন। অতি গোপনীয়তার সঙ্গে ওই খসড়া শুধু নির্বাচন কমিশনারদের দিয়েছেন। প্রচলন অনুযায়ী বৈঠকে অংশ নেওয়া কর্মকর্তাদের আলোচনার জন্য কার্যপত্র দেয়া হলেও সোমবারের বৈঠকে তা দেওয়া হয়নি।

আরএএস/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: