প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

শামসুজ্জোহা বাবু

রাজশাহী প্রতিনিধি

রাজশাহীতে গির্জায় তিন দিন আটকে রেখে আদিবাসী কিশোরীকে ধর্ষণ

   
প্রকাশিত: ১২:৪৩ পূর্বাহ্ণ, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০

ছবি: প্রতীকী

রাজশাহীর তানোরে এবার গির্জার ফাদারের বিরুদ্ধে ১৫ বছর বয়সী এক আদিবাসী কিশোরীকে আটকে রেখে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এঘটনার পর ফাদার প্রদীপ গ্যা গরীকে অপসারণ করে রাজশাহী শহরে নেয়া হয়েছে। আর ভুক্তভোগী কিশোরী বর্তমানে পুলিশ হেফাজতে রয়েছে।

কিশোরীর স্বজনরা জানান, ওই কিশোরী গত ২৬ সেপ্টেম্বর সকাল ১০ টায় উপজেলার মুন্ডুমালা মাহালীপাড়া এলাকায় ‘সাধুজন মেরী ভিয়ান্নী গির্জার’ পাশে ঘাস কাটতে গিয়ে নিখোঁজ হয়। অনেক খোঁজাখুঁজির পরে তাকে না পেয়ে পরেরদিন ২৭ সেপ্টেম্বর তার ভাই থানায় সাধারণ ডায়েরী (জিডি) করেন। তবে কিশোরী গীর্জার ফাদার প্রদীপের রুমে বন্দি অবস্থায় রয়েছে বলে এরপরের দিন ২৮ সেপ্টেম্বর বিকেলে তারা জানাতে পারেন।

স্থানীয়রা জানান, এঘটনায় ওইদিন সন্ধ্যায় গ্রামের মোড়ল ও মুন্ডুমালা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কার্মেল মার্ডির নেতৃত্বে গীর্জার ভেতরে শালিস বসে। সেখানে দোষী প্রমাণিত হওয়ায় ফাদার প্রদীপকে অপসারণ করে রাজশাহীতে নেয়া হয়। আর ভুক্তভোগী ওই কিশোরীকে গীর্জার ভেতরে সিস্টারদের কাছে রাখা হয়। তবে জিডি তুলে না নিলে ওই কিশোরীর পরিবারকে সমাজচ্যুত করার হুমকি দিয়েছেন বলে গীর্জাটির ফাদার প্যাট্রিক গমেজ ও শালিসি বৈঠকের প্রধান কামেল মাডির বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে।

এ ঘটনায় মঙ্গলবার (২৯ সেপ্টেম্বর) বিকেলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সুশান্ত কুমার মাহাতো ও থানার ওসি রাকিবুল হাসান গীর্জাটি পরিদর্শন করেছেন।

এবিষয়ে জানতে চাইলে তানোর থানার ওসি রাকিবুল হাসান বলেন, মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে। কিশোরীকে পুলিশী হেফাজতে নেয়া হয়েছে। তবে গীর্জার ফাদার পলাতক রয়েছে।

কেএ/ডিএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: