প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

রাতে বাসায় ফেরার পথে গণধর্ষণের শিকার পোশাক শ্রমিক

   
প্রকাশিত: ১০:১২ অপরাহ্ণ, ২২ অক্টোবর ২০২০

ছবি: প্রতীকী

কারখানার থেকে বাসায় ফেরার পথে রাস্তা থেকে তুলে নিয়ে এক পোশাক শ্রমিককে পালাক্রমে ধর্ষণ করেছে দুর্বৃত্তরা। বুধবার (২১ অক্টোবর) রাতে গাজীপুর কাশিমপুরের সারদাগঞ্জ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। বিচার দাবি করে সকালে ওই পোশাক শ্রমিকের সহকর্মীরা কাশিমপুর থানার সামনে বিক্ষোভ করে। ঘটনার সাথে জড়িত আমিনুল ইসলাম (২৮), শাহাদাত হোসেন (৩৫) ও বায়েজিদ হোসেনকে (৩০) আটক করেছে পুলিশ।এছাড়া, আক্তারুজ্জাম্মান আক্তার (৪৫) ও এমারত হোসেনকে (৪২) জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। আটক আমিনুল ইসলাম ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট থানার গোবরকুড়া এলাকার আব্দুল জব্বারের ছেলে।

শাহাদাত হোসেন গাজীপুর মহানগরের সারদাগঞ্জ এলাকার আমিনুল ইসলামের ছেলে, বায়েজিদ হোসেন একই এলাকার আব্দুল আলীমের ছেলে, আক্তারুজ্জামান একই এলাকার মৃত লতিফ মুন্সীর ছেলে, এমারত হোসেন একই এলাকার আব্দুল হকের ছেলে।

পুলিশ ও কারখানার শ্রমিকরা জানান, গাজীপুর মহানগরের সারদাগঞ্জ এলাকার আরব ফ্যাশন লিমিটেড নামে পোশাক কারখানার এক নারী শ্রমিক গেলো রাতে ছুটির পর বাসায় ফেরার পথে ৫/৬ জন যুবক তাকে রাস্তা থেকে তুলে নেয়। পরে স্থানীয় স্কয়ার গেট এলাকার নির্জন স্থানে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। পরে তার পরিবারের লোকজনকে ফোনে ৫০ হাজার টাকা মুক্তিপণ দাবি করে ।

বিষয়টি জানাজানি হলে পুলিশ শাহাদাত হোসেন, বায়েজিদ হোসেন, আমিনুল ইসলাম, আক্তারুজাম্মান ও এমারত হোসেনকে আটক করে।
তবে, পুলিশ শুধু আমিনুল ইসলামকে আটকের কথা স্বীকার করেছে।

গাজীপুর মেট্টোপলিটন পুলিশ কোনাবাড়ি জোনের সহকারী কমিশনার থোয়াই অংপ্রু মারমা জানান, এ ঘটনায় জড়িত তিনজনকে আটক করা হয়েছে ।

এছাড়া আক্তারুজ্জামান ও এমারতকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে । ভূক্তভোগী নারী শ্রমিককে পরিক্ষার জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহম্মদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

গাজীপুর মেট্টোপলিটন পুলিশ উপ-কমিশনার (ক্রাইম উত্তর) রেজওয়ান আহমেদ জানান, ঘটনার সাথে তিনজনকে আটক করা হয়েছে। বাকীদের আটক অভিযান চলছে।

কেএ/ডিএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: