প্রচ্ছদ / সৌদি আরব / বিস্তারিত

সাগর চৌধুরী

সৌদি আরব ব্যুরো

রিয়াদ আওয়ামী পরিষদসহ সাত সংগঠনের মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন

   
প্রকাশিত: ১০:০২ পূর্বাহ্ণ, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০

প্রবাসী মেহনতী ও সাধারণ মানুষ যাদের শ্রমের টাকায় দেশের উন্নয়ন হয়, সেই উন্নয়নের অংশীদারদের সঠিক ভাবে সম্মান দিতে পারলেই বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বাস্তবায়ন হবে। আমরা চাই এই সমস্ত সমস্যা মুজিববর্ষে সমাধান হোক। মহান শহীদ দিবসে প্রবাসী বাংলাদেশিদের বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে বক্তব্য রাখার সময় রিয়াদ আওয়ামী পরিষদের সভাপতি এম আর মাহবুব এসব কথা বলেন। তিনি তার বক্তব্যে বলেন, আমরা লক্ষ্য করছি বাংলাদেশে এবং প্রবাসের অধিকাংশ স্কুলে শহীদ মিনার নেই। শহীদ মিনার শুধু একটি স্তম্ভ নয় এটি একটি ইতিহাস, এটি আমাদের ঐতিহ্য। তাই সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার স্হাপনের দাবি জানান ।

প্রবাসীদের ক্ষেত্রে জাতীয় পরিচয় পত্র খুবই জরুরী এখান থেকে দেশে গিয়ে আইডি কার্ড বানানো অত্যান্ত দুষ্কর ও দুরূহ বিষয়। কাজেই এর সমাধান এখানে হওয়া দরকার। এখন প্রবাসীরা বিভিন্ন সমস্যায় জর্জরিত যার জন্যে প্রবাসীদের মৃত্যুর সংখ্যা অনেক বেড়ে চলছে। একজন প্রবাসী মৃত্যু বরণ করলে তার পরিবারকে দেওয়া হয় তিন লাখ পঁয়ত্রিশ হাজার টাকা, অপরদিকে একজন গার্মেন্টস কর্মী মৃত্যু বরণ করলে তাদের দেওয়া হয় দশ/বারো লাখ টাকা।তাই প্রবাসী মৃত্যুবরণ করলে তাদের দশ লাখ টাকা দিতে হবে । তিনি প্রবাসীদের পেনশন স্কিম ও ইন্সুরেন্স থাকার প্রয়োজন আছে বলে উল্লেখ করে বলেন, প্রবাসীরা দীর্ঘদিন প্রবাসে থেকে দেশে ফিরে গিয়ে অসুস্থ হয়ে পড়লে, যাতে করে উন্নত চিকিৎসা নিতে পারেন এবং অবসর সময়ে পেনশন স্কিমের অর্থ দিয়ে জীবনযাপন করতে পারেন ।

একুশে ফেব্রুয়ারি রিয়াদের স্থানীয় একটি কমিউনিটি সেন্টারে রিয়াদ আওয়ামী পরিষদ, বঙ্গবন্ধু পরিষদ, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ, আওয়ামী যুবলীগ, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক লীগ, জাতীয় শ্রমিক লীগ ও পূর্বাঞ্চল কৃষক লীগ যৌথ উদ্যোগে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন করা হয়।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বঙ্গবন্ধু পরিষদের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রুইসউজ্জামান । প্রধান অতিথি ছিলেন আওয়ামী পরিষদ সভাপতি এমআর মাহবুব, বিষেশ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এ্যালামনাই এসোসিয়েশন রিয়াদ চ্যাপ্টার এর সাধারণ সম্পাদক কবি শাহজাহান চঞ্চল, বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন রিয়াদ প্রাদেশিক কমিটির সভাপতি আব্দুস সালাম, ফ্রেন্ডস অব বাংলাদেশের সহ-সভাপতি আব্দুর রহমান চৌধুরী, আওয়ামী পরিষদের সাধারণ সম্পাদক খুরশিদ আলম তপন, জাতীয় শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক বাবুল দাস ।

অনুষ্ঠানটি যৌথ ভাবে সঞ্চালনা করেন রিয়াদ যুবলীগ সভাপতি এমএ জলিল রাজা ও আওয়ামী পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক আলী নূর ইসলাম রনি।

অনুষ্ঠানের সভাপতি রইসউজ্জামান আমন্ত্রিত অতিথিদের অভিনন্দন ও ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, মাতৃভাষা আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে এটা আমাদের জন্যে গর্বের বিষয়। কিন্তু এখন দেখা যায় আমাদের মাঝে বাংলাভাষা চর্চা খুবই কম। বিশেষ করে ইংরেজি মাধ্যম শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অধ্যায়নরত ছেলে মেয়েদের বাংলাভাষার প্রতি অনিহা অনেক বেশী । তাই এসকল প্রতিষ্ঠানে ইংরেজির পাশাপাশি বাংলা ভাষায় পাঠদান খুবই জরুরী ।তিনি আরও বলেন, রাজনীতি মানে লুটপাট নয়, রাজনীতি মানে মানব সেবা। আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে ভালোবাসি এবং তার আদর্শকে মনের মাঝে লালন করি। যেকোনো সমাজ সেবামূলক কাজে আওয়ামী পরিবারের সাথে থেকে করে যাবো।

বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন সভাপতি আব্দুস সালাম বলেন, আমরা আওয়ামী পরিবার সবাই ঐক্যবদ্ধ ছিলাম এবং থাকবো। আমাদের মাঝে কোনো ভুলত্রুটি হলে একে অপরকে ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখবো। আমরা প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনার রাজনীতি করি। জননেত্রী শেখ হাসিনা বার বার এই ঐক্যের কথা বলেছে। জননেত্রীর হাতকে শক্তিশালী করতে হলে ঐক্যের বিকল্প নেই। আমারা একে অপরের শত্রু নই। আমরা সবাই একই আদর্শের বিশ্বাসী।

কবি শাহজাহান চঞ্চল বলেন, শহীদ মিনার কেনো সব বিদ্যালয়ে বাধ্যতামূলক নয় তা আমার জানা নেই, অবশ্যই সকল বিদ্যালয়ে বাধ্যতামূলক হওয়া উচিৎ। ১৯৫২ সালের একুশে ফেব্রুয়ারি যখন আমাদের ছেলেরা আত্মাহুতি দিলো, তারপরের দিন ঢাকা মেডিকেল কলেজে প্রথম শহীদ মিনার বানানো হয়েছিলো। তখন পাকিস্তানের স্বৈরাচার সরকার ভয় পেয়ে সেই শহীদ মিনার ভেঙ্গে ফেলে। এই শহীদ মিনার আমাদের হাতকে শক্তিশালী করে। তাই আমরা আওয়ামী পরিবারের সবাই মিলে দূতাবাসে স্মারকলিপি দিবো। যাতে করে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শহীদ মিনার বাধ্যমূলক হয়।

অনুষ্ঠানে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশন রিয়াদ প্রাদেশিক কমিটির সহ-সভাপতি কৃষিবিদ শামীম আবেদীন, মহানগর শাখার সভাপতি এটিএম জিয়াউদ্দিন, আওয়ামী পরিষদের জিয়াউদ্দিন বাবলু, বঙ্গবন্ধু পরিষদের সাধারণ সম্পাদক এনামুল কবির বিশ্বাস, মহানগর সেচ্ছাসেবক লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ফয়েজ হোসেন লাভলু, সাধারণ সম্পাদক ফারুক হোসেন, পূর্বাঞ্চল কৃষক লীগের আহবায়ক গিয়াসউদ্দিন মজুমদার, রিয়াদ যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান ভূঁইয়া, মহানগর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আরকান শরিফসহ আরও অনেকে।

পরে শহীদদের আত্মার শান্তি কামনায় দোয়া ও মুনাজাত পরিচালনা করেন হাফেজ আব্দুস সালাম ।

এআইআ/এইচি

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: