প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

লাশ দেখতে গিয়ে লাশ হলেন ভাই-বোন

   
প্রকাশিত: ৭:৪১ অপরাহ্ণ, ৩ জানুয়ারি ২০২০

আত্মীয়ের লাশ দেখতে ও দাফনে অংশ নিতে যাবার পথে দুর্ঘটনার শিকার হয়ে লাশ হলেন ভাই-বোন। শুক্রবার (৩ জানুয়ারি) সকাল ৯টার দিকে নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ-রংপুর সড়কে রণচণ্ডী ইউনিয়নের অবিলের বাজারে ঘটনাটি ঘটে। সড়ক দুর্ঘটনায় মাইক্রোবাস আরোহী জহুরম্নল ইসলাম (৬৫) এবং বোন আনোয়ারা বেগম (৫৭) ঘটনাস্থলেই নিহত হন। সম্পর্কে তারা দুইজন ভাই-বোন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ১৪ জন। তাদের ১২ জনকে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। নিহতরা জেলার জলঢাকা উপজেলার গোলনা ইউনিয়নের নবাবগঞ্জ গ্রামের মৃত. মোবারক আলীর সন্তান।

জানা যায়, নিকট আত্মীয়ের দাফনে অংশ নেওয়ার জন্য বগুড়ায় যাচ্ছিলেন তারা। পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, ঘটনার সময় নারায়নগঞ্জের কাঁচপুর থেকে ছেড়ে আসা পঞ্চগড়ের দেবীগঞ্জ উপজেলার ভাউলাগঞ্জগামী আজিজ ট্রাভেলের একটি নৈশ কোচেরসাথে বিপরীত দিক থেকে আসা মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই মাইক্রোবাসের দুই যাত্রি নিহত হন। আহতদের মধ্যে ১২ জনকে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। নিহতরা ভাই-বোন বলে ওই মাইক্রোবাসের অন্য যাত্রিরা জানান। প্রত্যক্ষদর্শী মো. আসাদুজ্জামান (৩৫) বলেন, সকালে হালকা বৃষ্টি হচ্ছিল। এসময় বাস এবং মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষের বিকট শব্দে আমরা দৌঁড়ে এসে দুই জনকে মৃত অবস্থায় দেখতে পাই। আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠাই। আহত এবং নিহতরা সকলেই মাইক্রোবাসের যাত্রি।

গোলনা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান কামরুল আলম জানান, বগুড়ার মোকামতলায় এক নিকটাত্মীয়ের দাফন কাজে অংশ নিতে মাইক্রোবাসে যাচ্ছিলেন তারা। এসময় কিশোরগঞ্জের ওই স্থানে যাত্রিবাহি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে দুর্ঘটনাটি ঘটার কথা শুনেছি। এ বিষয়ে কিশোরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. হারুর-অর রশীদ বলেন, ওই দুর্ঘটনায় ঘটনাস্থলে মাইক্রোবাসের দুইজন যাত্রি নিহত হয়েছেন, আহত হয়েছেন ১৪ জন। নিহত দুইজনের লাশ তাদের স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে ১২ জন রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। দুর্ঘটনা কবলিত মাইক্রোবাস ও যাত্রিবাহী বাসটি পুলিশ হেফাজতে নিয়ে মামলার প্রস্তুতি চলছে।

এফএএস/এসএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: