প্রচ্ছদ / সারাবিশ্ব / বিস্তারিত

লেবাননে ভয়াবহ বিস্ফোরণ ; ঘর হারিয়ে পথে ৩ লাখ মানুষ, নেই খাবার

   
প্রকাশিত: ১১:০০ পূর্বাহ্ণ, ৬ আগস্ট ২০২০

লেবাননের রাজধানী বৈরুতে বিস্ফোরক দ্রব্যের গুদামে ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৩৫ জনে। আহত হয়েছে চার হাজারের বেশি মানুষ। এ ঘটনায় ওই এলাকার বহু ভবন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বুধবার (৫ আগস্ট) বিকালে বৈরুতের বন্দর এলাকার ওই বিস্ফোরণে পুরো বৈরুত শহর ভূমিকম্পের মত কেঁপে ওঠে।

এদিকে ভয়াবহ বিস্ফোরণের পর নানা অনিশ্চয়তায় দ্বিতীয় রাতযাপন করলেন লেবাননের বৈরুতবাসী। শহরজুড়ে এখন শুধুই ধ্বংসযজ্ঞ। সহায় সম্বল হারিয়ে রাস্তায় নেমেছেন প্রায় ৩ লাখ মানুষ। করোনা মহামারীর মধ্যে এমন সঙ্কটে দিশেহারা স্থানীয়রা।

ক্ষতিগ্রস্থ একজন বলেন, জানি না কোথায় যাবো। কোথাও কোন মাথা গোঁজার জায়গা নেই। এভাবে পথে থাকতে হবে কখনও ভাবতে পারিনি।

এক নববধূ বলেন, চোখের সামনে সারা শহরটা এক মুহূর্তেই ধ্বংস হয়ে গেলো। যে বাড়িটা বিয়ের পর থাকবো বলে সাজানো হয়েছিলো, সেটাও ধসে গেছে। বেঁচে আছি, এখন এটাই অনেক।

ঘটনা তদন্তের জন্য বেশ কয়েকজন বন্দর কর্মকর্তাকে গৃহবন্দি রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছে লেবানন সরকার। দেশটিতে এরই মধ্যে দুই সপ্তাহের জরুরি অবস্থা শুরু হয়েছে।

বুধবার মন্ত্রিসভার জরুরি এক বৈঠকে লেবাননের প্রেসিডেন্ট মাইকেল আউন জানিয়েছেন, গত রাতের ভয়াবহতা ভাষায় প্রকাশ করার মতো নয়, যা পুরো শহরকে বিপর্যস্ত করে দিয়েছে। গুদামে অনিরাপদভাবে রাখা ২ হাজার ৭৫০ টন অ্যামুনিয়াম নাইট্রেটের কারণেই এই বিস্ফোরণ হয়েছে।

বন্দরের কাস্টম প্রধান বাদ্রি দাহের জানান, এই রাসায়নিক পদার্থ সরিয়ে নেয়ার জন্য বেশ কয়েকবার চিঠি দেয়া হলেও তা সরানো হয়নি। অ্যামুনিয়াম নাইট্রেট কৃষিতে সার এবং বিস্ফোরক হিসেবে ব্যবহৃত হয়।

এআইআর/ডিএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: