শিক্ষার্থী নির্যাতন করায় মাদ্রাসা শিক্ষকসহ ৪ জন আটক

                       
প্রকাশিত: ১১:৪৩ পূর্বাহ্ণ, ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০

ঢাকার আশুলিয়ায় একটি মাদ্রাসায় এক শিশু শিক্ষার্থীকে মারধর করার অভিযোগ উঠেছে এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে। শিশুকে প্রকাশ্যে মারধরের ঘটনার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হলে আশুলিয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। পরে নির্যাতনের অভিযোগে এক শিক্ষকসহ চারজনকে আটক করে পুলিশ।

গতকাল সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) রাতে শ্রীপুরের মধুপুরে জাবালে নূর কওমী মাদরাসা থেকে তাদের আটক করা হয়। নির্যাতিত শিক্ষার্থী রাকিবুল ইসলাম রাশেদের (১৪) বাড়ি টাঙ্গাইলে ও অপর শিক্ষার্থী মাহফুজুর রহমান ফুয়াদের (১০) বাড়ি ঝালকাঠি সদরে। নির্যাতনের শিকার শিশু শিক্ষার্থী মাহফুজুর রহমান জানায়, তার সহপাঠী রাকিবুল নির্যাতন সইতে না পেরে পালিয়ে যায়। পরে তাকে খুঁজে নিয়ে এসে মাদরাসার ভেতর হাত-পা বেঁধে নির্যাতন চালায় শিক্ষক ইব্রাহিম। এসময় রাকিবুলকে পালাতে সহায়তার অভিযোগে তাকেও নির্মমভাবে বেত্রাঘাত করে জখম করেন ওই শিক্ষক।

ধামসোনা ইউপি মেম্বার মোনতাজ উদ্দিন ও এলাকাবাসী জানায়, গত দুই বছর পূর্বে মধুপুর এলাকায় ছয় তলা ভবনের চতুর্থ তলায় ১২ জন শিক্ষার্থী নিয়ে আবাসিক শিক্ষা কার্যক্রম শুরু করে কওমী মাদরাসাটি। তবে ইব্রাহিম ও ওবায়দুল্লাহ নামে দুইজন হাফেজ দিয়েই চলতো প্রতিষ্ঠানটি। এরপর গত ১১ সেপ্টেম্বর মাদরাসার দুই শিক্ষার্থীকে হাত-পা বেঁধে নির্মম নির্যাতন চালায় মাদরাসার শিক্ষক ইব্রাহিম। পরে সোমবার শিশুদের শরীরে পাশবিক নির্যাতনের চিহ্ন দেখে সিসিটিভি ফুটেজ সংগ্রহ করে ফেসবুকে ছড়িয়ে দেয় স্থানীয়রা। এরপরই এলাকাবাসী একত্রিত হয়ে সোমবার রাতে অভিযুক্ত মাদরাসার শিক্ষক ইব্রাহিমকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে। এসময় অপর শিক্ষক ওবায়দুল্লাহকেও জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিয়ে যায় পুলিশ।

আরএএস/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


পাঠকের মন্তব্য:

সর্বশেষ

নিবন্ধন নং- ০০০৩

© স্বত্ব বিডি২৪লাইভ মিডিয়া (প্রাঃ) লিঃ
এডিটর ইন চিফ: আমিরুল ইসলাম আসাদ
বাড়ি#৩৫/১০, রোড#১১, শেখেরটেক, ঢাকা ১২০৭

ফোন: ০৯৬৭৮৬৭৭১৯০, ০৯৬৭৮৬৭৭১৯১
ইমেইল: [email protected]