প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

এম. সুরুজ্জামান

শেরপুর প্রতিনিধি

শেরপুরে বৃষ্টিতে সড়ক ভেঙ্গে চলাচলে দুর্ভোগ বেড়েছে

   
প্রকাশিত: ৮:২৬ অপরাহ্ণ, ৩ জুলাই ২০২০

শেরপুরের ঝিনাইগাতী উপজেলার কাড়াগাঁও বটতলা-আয়নাপুর সড়ক বৃষ্টির ভেঙ্গে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। শুক্রবার (৩ জুলাই) সকাল নয়টার দিকে ওই সড়কের আয়নাপুর এলাকার ফর্সা মিয়ার বাড়ির সামনে এ ঘটনা ঘটে। ফলে এ সড়ক দিয়ে চলাচল করতে গিয়ে স্থানীয় বাসিন্দাদের ভোগান্তি বেড়ে গেছে। এ অবস্থায় সড়কটি দ্রুত সংস্কারের দাবি জানান স্থানীয় বাসিন্দারা।

উপজেলার কাড়াগাঁও বটতলা-আয়নাপুর সড়কে আয়নাপুর এলাকার ফর্সা মিয়ার বাড়ির সামনে বৃষ্টিতে ভেঙ্গে ঢালাই ও বিটুমিন উঠে বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। এতে সিএনজি, ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা, ভ্যান, মোটরসাইকেল যাতায়াত করতে পারছে না। অনেকেই এ অবস্থায় গাড়ি থেকে নেমে ঠেলে ঠেলে সড়কের ভাঙ্গা পার করার চেষ্টা করছে।

এছাড়া, এ সড়কের বিভিন্ন স্থানে ইট-বালু, ঢালাই ও বিটুমিন উঠে বিভিন্ন স্থানে খানাখন্দ আর গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। কোথাও কোথাও সড়কের গর্তে বৃষ্টির পানি জমে আছে। সড়কে একটি গাড়ি আরেকটিকে অতিক্রম করতে পারে না।

স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি) উপজেলা কার্যালয় ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, কাড়াগাঁও বটতলা থেকে গুরুচরণ দুধনই বর্ডার সড়ক (আরএইচডি) পর্যন্ত ৫.৯ কিলোমিটার। এ সড়কের কাড়াগাঁও বটতলা-আয়নাপুর বাজার পর্যন্ত প্রায় দেড় কিলোমিটার। গত তিন বছর আগে এ সড়কটির সংস্কার কাজ করা হয়।

সমাজকর্মী নাইম জাহান ও অটোরিকশা চালক হামিদুর বলেন, বটতলা থেকে আয়নাপুর বাজার পর্যন্ত সড়কে আগে থেকেই ইট-বালু, ঢালাই ও বিটুমিন উঠে কয়েকটি স্থানে গর্ত হয়েছে। আজকে (শুক্রবার) বৃষ্টিতে ভেঙ্গে আরও ভোগান্তি বেড়ে গেছে। চলাচল করতে খুবই কষ্ট হচ্ছে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য আলমাছ বলেন, সকালে বৃষ্টিতে হঠ্যাৎ করে রাস্তা ভেঙ্গে চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। এ অবস্থায় দ্রæত এ সড়কটি সংস্কার করার দাবি জানান তিনি।

এ ব্যাপারে এলজিইডির উপজেলা প্রকৌশলী মোজাম্মেল হক বলেন, ‘পরিদর্শন করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’
তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের একটি নতুন প্রকল্প তৈরী হচ্ছে। ওই প্রকল্পের আওতায় কাড়াগাঁও বটতলা থেকে গুরুচরণ দুধনই বর্ডার (আরএইচডি) পর্যন্ত ৫.৯ কিলোমিটার সড়ক প্রশস্তকরণ ও মজবুতিকরণের জন্য উন্নয়ন প্রকল্প প্রস্তাবনা (ডিপিপি) তৈরি করে পাঠানো হয়েছে। এ প্রকল্পটি অনুমোদন পেলে দ্রুত সময়ের মধ্যে সড়কটি প্রশস্তকরণ ও মজবুতিকরণের জন্য কাজ করা হবে।’

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রুবেল মাহমুদ বলেন, ‘সড়কটি সংস্কারের জন্য দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

এসএ/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: