প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

সন্তানের জীবন বাঁচাতে বাড়ি ছাড়া আতিকার পরিবার

   
প্রকাশিত: ৭:০৩ অপরাহ্ণ, ১০ আগস্ট ২০২০

ছবি: প্রতিনিধি

আব্দুল ওয়াদুদ, শেরপুর (বগুড়া) থেকে: বগুড়ার ধুনট উপজেলার বিলচাপড়ী মাঠপাড়া এলাকায় আতিকার দুই শিশু সন্তানকে হত্যার উদ্দ্যেশে রাতের আধারে ঘরে প্রবেশ করে সাজেদ প্রাং। এবং শিশুর মা আতিকা টের পাওয়ায় তাকে কু-প্রস্তাব দেয় ঐ গ্রামের জসীম প্রাং এর ছেলে সাজদ প্রাং। এ ঘটনায় ধুনট থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

অভিযোগ সুত্রে জানা য়ায়, বিলচাপড়ী মাঠপাড়া এলাকার আবুল হোসেনের স্ত্রী আতিকা আক্তার রনি গত ৭ আগষ্ট রাতের খাবার খেয়ে দুই সন্তান তালহা (১৬ মাস) ও নদী খাতুন (৫) নিয়ে ঘুমিয়ে পড়ে। আতিকার স্বামী আবুল হোসেন ঢাকার থাকার সুযোগে পুর্ব শত্রুতার জেরে দুই শিশুকে হত্যার উদ্দ্যেশে সাজেদ প্রাং জানালা ভেঙ্গে ঘরে প্রবেশ করে। শিশুটির মা আতিকা টের পেলে প্রথমে তাকে কু-প্রস্তাব দেয়। এতে সে অস্বীকার করে তার দুই শিশুকে হত্যা করার চেষ্টা করলে আতিকা ও সাজেদের মাঝে ধস্তা-ধস্তি হয়। এক পর্যায়ে আতিকা ও শিশু দুটির চিৎকারে আশেপাশের লোকজন আসলে সাজেদ প্রাং পালিয়ে যায়। এরই জের ধরে পরের দিন দুই পক্ষের মারামারির ঘটনাও ঘটে। সাজেদ প্রাং তাদেরকে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ভাবে জীবন নাশের হুমকী প্রদান করায় নিজ বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে আছে আতিকার আক্তার ও দুই শিশু সন্তানকে নিয়ে।

ভুক্তভোগী আতিকা আক্তার রনি বলেন, আমার স্বামী বাড়িতে না থাকায় জীবন নিরাপত্তার জন্য নিজ বাড়ি ছাড়তে হয়েছে সাজেদ প্রাং এর ভয়ে। ৫ বছরের শিশু নদী খাতুন বলেন, আমাকে মেরে ফেলার জন্য আংকেল দুঃখনির বাবা রাত্রিতে আসছিল।

এ বিষয়ে সাজেদ প্রাং বাড়িতে গেলে পাওয়া না যাওয়ায় তার মোবাইল নম্বর ০১৭২৯..০..৮ তে যোগাযোগ করলে তার স্ত্রী তাসলিমা বলেন, আমার স্বামীর সাথে পূর্বে শত্রুতা থাকতে পারে আমি জানিনা, তবে সেদিন আতিকার বাড়িতে যায়নি। তার কেন প্রমানও নেই।

এ ব্যাপারে ধুনট থানা এস আই রিপন বলেন, অভিযোগ পেয়েছি, তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

কেএ/ডিএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: