রফিকুল ইসলাম

বান্দরবন প্রতিনিধি

সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজ ও ঠকবাজকে আওয়ামী লীগে আশ্রয় দেয়া হবে না: পার্বত্য মন্ত্রী

   
প্রকাশিত: ৮:২০ অপরাহ্ণ, ৩১ জানুয়ারি ২০২০

জনগণের সমস্যা, এলাকার সম্ভাবনা সরকারের কাছে তুলে ধরা এবং আওয়ামীলীগের উন্নয়ন কর্মকান্ড গুলো মানুষের সামনে তুলে ধরাই হবে আওয়ামীলীগের নব-গঠিত কমিটির সদস্যদের দায়িত্ব। আমরা বান্দরবানের ৭টি উপজেলার সম্মেলন শেষ করেছি। লামায় প্রথম অভিষেক করা হল। শীঘ্রই অন্যান্য উপজেলায় ধারাবাহিকভাবে অভিষেক অনুষ্ঠান গুলো করা হবে।

তিনি দৃঢ় কন্ঠে আরো বলেন, কোন সন্ত্রাস, চাঁদাবাজ ও ঠকবাজকে আওয়ামীলীগের আশ্রয় দেয়া হবেনা। দলের নাম ভাঙ্গিয়ে কোন ধরনের অপকর্ম করলে ছাড় দেব না। জনগণের পাশে দাঁড়ানো হবে আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীদের মূল কাজ। মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার ভিশন ২০২১ ও রুপকল্প ২০৪১ বাস্তবায়নে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। বান্দরবানের ৭টি উপজেলা, ২টি পৌরসভা, ৩৩টি ইউনিয়ন ও ১২টি জাতিগোষ্ঠীর উন্নয়ন হলে বান্দরবান উন্নত হবে।

শুক্রবার (৩১ জানুয়ারী) দুপুরে বান্দরবানের লামা উপজেলা আওয়ামীলীগের নবগঠিত ত্রি-বার্ষিক কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠান ও মিলনমেলায় এইসব কথা বলেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি। লামা পৌরসভার ২নং ওয়ার্ড সংলগ্ন হেব্রণ খ্রিষ্টান মিশনে এই মিলনমেলা অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে আরো উপস্থিত ছিলেন, বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ক্য শৈ হ্লা, বান্দরবানের পুলিশ সুপার জেরিন আখতার, বান্দরবান পৌরসভার মেয়র ইসলাম বেবী, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের বান্দরবানের নির্বাহী প্রকৌশলী ইয়াছিন আরাফাত, উপজেলা চেয়ারম্যান মোস্তফা জামাল, উপজেলা নির্বাহী অফিসার নূর-এ জান্নাত রুমি, লামা পৌরসভার মেয়র মো. জহিরুল ইসলাম, লামা উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বাথোয়াইচিং মার্মা, বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের সদস্য লক্ষীপদ দাশ, মোজাম্মেল হক বাহাদুর, ফাতেমা পারুল, থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ অপ্পেলা রাজু নাহা ও ভাইস চেয়ারম্যান মো. জাহেদ উদ্দিন, মিলকি রাণী দাশ সহ প্রমূখ।

মিলনমেলায় দুপুরে ৩ হাজার দলীয় নেতাকর্মী, আমন্ত্রিত অতিথি ও সুধী সমাজের জন্য মধ্যাহ্ন ভোজের আয়োজন করা হয়। এছাড়া মিলনমেলাকে স্বরণীয় করে রাখতে সকলের অংশগ্রহণে লাকী কুপন (লটারী) ও শেষে চট্টগ্রাম হতে আসা অতিথি শিল্পীদের পরিবেশনায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

মিলনমেলায় অংশ নেয়ার পথে সরকারী সফরে এসে পার্বত্য মন্ত্রী কয়েকটি উন্নয়ন কাজের শুভ উদ্বোধন করেন। তিনি ইয়াংছা মেইন রোড হতে কাঁঠালছড়া রাস্তা পর্যন্ত সড়ক নির্মাণ কাজের শুভ উদ্বোধন, নবনির্মিত কুমারী বাজার পুলিশ ক্যাম্পের ভবনের শুভ উদ্বোধন এবং কুমারী দারুচ্ছুন্নাহ তাহফিজুল কোরআন মাদ্রাসা ও এতিমখানা ভবনের শুভ উদ্বোধন করেন

এসএ/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: