সান্ত্বনার জয়টাও পেল না আফগানিস্তান

   
প্রকাশিত: ১১:৪২ অপরাহ্ণ, ৪ জুলাই ২০১৯

গুরুত্বহীন এক ম্যাচ। দুই দলই ছিটকে পড়েছে টুর্নামেন্ট থেকে। তবে এমন ম্যাচেও দর্শক বিনোদনের পসরা সাজিয়ে বসেছিলেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের ব্যাটসম্যানরা। আফগানিস্তানের বোলারদের তুলোধুনো করে ৬ উইকেটে ৩১১ রানের সংগ্রহ দাঁড় করিয়েছে ক্যারিবীয়রা। অর্থাৎ সব ম্যাচ না হেরে দেশে ফিরতে হলে ৩১২ রান করতে হবে আফগানদের।

বিশ্বকাপের ৪২তম ম্যাচে টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন উইন্ডিজ অধিনায়ক জেসন হোল্ডার। ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি ওয়েস্ট ইন্ডিজের। মাত্র ৭ রান করে দৌলতের বলে ইকরামের হাতে তালুবন্ধি হয়ে ফিরেন ক্রিস গেইল। অন্যদিকে ৬২ বলে ৫ চার ও ২ ছয়ে হাফসেঞ্চুরি পূর্ণ করেন লুইস। কিন্তু তিনি ৫৮ রান করে রশিদের বলে নবির হতে ধরা পড়ে সাঝঘরে ফিরেন। ৬৫ বলে ৪ চার ও ১ ছয়ে হাফসেঞ্চুরি পূর্ণ করেন শাই হোপ। ৩৯ রান করে দৌলতের বলে নুর আলির হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরেন হেটমায়ার। ৭৭ রান করে নবির বলে রশিদের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরেন হোপ। অন্যদিকে ৪০ বলে ৬ চারে হাফসেঞ্চুরি পূর্ণ করেন পুরান।

তবে ৫৮ রানে রান আউটের শিকার হয়ে ফিরেন তিনি। এরপর ৪৫ রান করে শিরজাদের বলে দৌলতের হাতে ধরা পড়ে ফিরেন হোল্ডার। শেষ পর্যন্ত ব্যাথওয়েট ১৪ রানে অপরাজিত ছিলেন এবং নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ৩১১ রান করে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। জয়ের জন্য আফগানিস্তানের দরকার ছিল ৩১২ রান।

৩১২ রানের বিশাল লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই সাজঘরে ফিরে যান আফগান অধিনায়ক নাইব। তবে দ্বিতীয় উইকেটে ১৩৩ রানের জুটি গড়েন উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান ইকরাম আলি খিল ও রহমত শাহ।

বিশ্বকাপের তৃতীয় কণিষ্ঠতম ব্যাটসম্যান হিসেবে ফিফটি করেন ইকরাম। পরে তিনি গড়েন বিশ্বকাপের কনিষ্ঠতম ব্যাটসম্যান হিসেবে ৮০+ রানের ইনিংস খেলার রেকর্ডও। সেঞ্চুরির সম্ভাবনা জাগিয়েও তিনি ক্রিস গেইলের ওভারে ধরা পড়েন লেগ বিফোরের ফাঁদে।

আউট হওয়ার আগে ৮ চারের মারে ৯৩ বলে ৮৬ রান করেন ইকরাম। তার আগেই অবশ্য ৬২ রান করে সাজঘরে ফিরে যান রহমত শাহ। এরপর নাজিবউল্লাহ জাদরান ৩১ ও আসগর আফগান ৪০ রান করলে পরাজয়ের ব্যবধানটাই স্রেফ কমাতে পারে আফগানিস্তান।

শেষদিকে খানিক চেষ্টা করেন রশিদ খান। তবে জীবন পেয়েও বেশি কিছু করতে পারেননি তিনি। আউট হয়ে যান ১৬ বলে ৯ রান করে। তবে শিরজাদ আহমেদ খেলেন ১৭ বলে ২৬ রানের ইনিংস। শেষপর্যন্ত আফগানিস্তান নির্ধারত ৫০ ওভার সবকয়টি উইকেট হারিয়ে ২৮৮ রান করতে সক্ষম হয়।

এআইআর/ডিএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: