প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

সাইফুল মাহমুদ

সীতাকুন্ড, চট্টগ্রাম প্রতিনিধি

সীতাকুণ্ড ও সন্দ্বীপ চ্যানেলে রুপালী ইলিশের ঝলক

   
প্রকাশিত: ৪:২২ অপরাহ্ণ, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০

ফাইল ফটো

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড ও সন্দ্বীপ চ্যানেলে বঙ্গোপসাগরে জেলেদের জালে ধরা পড়তে শুরু করেছে ঝাকে ঝাকে রুপালী ইলিশ। দাম না কমায় হতাশা বিরাজ করছে ক্রেতা সাধাণের মাঝে। মৌসুমের শুরুতে ইলিশের দেখা না পাওয়ায় অনেকটা হতাশায় ভুগছিলেন জেলেরা। তবে হটাৎ করে সাগরে কাংক্ষিত রুপালি ইলিশ ধরা পড়ায় হাসি ফুটেছে জেলে, আড়তদার ও মৎস্যজীবীদের মুখে। গত এক সপ্তাহের অধিক সময় ধরে গভীর সমুদ্রে থাকা ইলিশ বোঝাই ট্রলারগুলো আসতে শুরু করেছে দুই উপজেলার বিভিন্ন ঘাটে। বাজারে জেলে, আড়ৎদার ও মৎস্য ব্যবসায়ীরা পার করছেন ব্যস্ত সময়।

আজ রবিবার সরোজমিনে গিয়ে দেখা যায়, গত তিন দিনে সাগর থেকে ইলিশ বোঝাই করে ফিরেছে নৌকা ও স্প্রীটবোড। ফিরে আসা ইলিশভর্তি এসব নৌকা স্প্রীট বোডে বিভিন্ন ঘাটে দিয়ে আসা নৌকা ও স্প্রীট বোডগুলো ঘাটে সারিবদ্ধভাবে নোঙ্গর করে রাখা হয়েছে আর বিভিন্ন রকম ক্রেতারা ছোটাছুটি করেছে মাছ কেনার জন্য। মৌসুমের শুরুতে ইলিশের দেখা না পেলেও এখন কাংক্ষিত ইলিশ ধরা পড়তে শুরু করায় হাসি ফুটেছে জেলে , আড়তদার ও মৎস্যজীবীদের মুখে। সেই সাথে কর্মব্যস্ত হয়ে পড়েছেন জেলে, আড়ৎদার ও মৎস্য ব্যবসায়ীরা। কেউ ইলিশ মাছের ঝুড়ি টানছেন, কেউ প্যাকেট করছেন, আবার কেউ কেউ সেই প্যাকেট দেশের বিভিন্ন স্থানে পাঠাতে তুলে দিচ্ছেন ট্রাকে।

কুমিরা ঘাটের ইলিশ বিক্রেতা বলরাম জলদাস বলেন, গত বছরের তুলায় এবছর আশানুরুপ ইলিশ পড়ে নি। তরে গতকয়েকদিনে কিছুপরিমান ইলিশ পড়তে শুরু করেছে। আসা করি আগামী কয়েকদিনে আরো বেশি পরিমান ইলিশ ধরা পড়বে।

আরেক ইলিশ মাছ বিক্রেতা মিন্টু জলদাস বলেন, এবছর তেমন মাছ পড়েনি। এই ‘জো’ তে কিছু পরিমান ইলিশমাছ ধরা পড়তেছে। মৌসুমের প্রথম দিকে ইলিশের দেখা মেলেনি। তাই সবাই আমরা সবাই হতাশ হয়ে পড়েছিলেন। তবে সাগরে হটাৎ করে ঝাকে ঝাকে ইলিশ ধরা পড়তে শুরু করেছে।

উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা শামিম আহম্মদ বলেন, এই বছরের ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ১১২৫.৫০মেট্রিকটন ইলিশ মাছ আহরণ করা হয়েছে। তবে অনান্য বছরের তুলনায় এইবছর মাছ একটু কম আটক হচ্ছে। তবে মাছের আকার বড়। বাজারে বড় ইলিশ ১কেজি থেকে দেড় কেজি ওজনের ইলিশ বিক্রি হচ্ছে ৬শ টাকা থেকে ৮টাকায়, ৫শ গ্রাম থেকে ১কেজি ওজনের ইলিশ বিক্রি হচ্ছে ৪শ টাকা থেকে ৫শ টাকায়। চোট ইলিশ বিক্রি হচ্ছে ২শ থেকে ৩শ টাকায়। সবাই আশা করছে আগামী আগামী এক-দুই সপ্তাহের মধ্যে ইলিশের পরিমান বাড়তে পারে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

এমআর/এনই

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: