প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

স্বামীকে গাছের সঙ্গে বেঁধে ৫ জন মিলে স্ত্রীকে গণধর্ষণ

   
প্রকাশিত: ৮:২৮ পূর্বাহ্ণ, ২৩ নভেম্বর ২০২০

ছবি: প্রতীকী

ঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলার বইনদেখালি থেকে মাগুরা সদরের জাগলা গ্রামে ধান সংগ্রহের কাজে গিয়েছিলেন স্বামী-স্ত্রী। থাকার কোনো আশ্রয় না থাকায় খোলা মাঠে পলিথিনের ঝুপড়ি বানিয়ে রাত যাপন করছিলেন। শনিবার রাতে ওই ঝুপড়িতে হানা দেয় পাঁচজনের একটি দল। স্বামীকে গাছে বেঁধে, স্ত্রীকে গণধর্ষণ করে তারা। এমনকি ধারালো অস্ত্র দেখিয়ে হত্যার হুমকিও দেয়।

এ ঘটনায় অজ্ঞাত পরিচয় পাঁচ জনকে আসামি করে রোববার (২২ নভেম্বর) মাগুরা সদর থানায় মামলা করেছেন ভুক্তভোগী। শনিবার রাতে সদর উপজেলার জাগলা গ্রামে এই ঘটনা ঘটে বলে মামলায় অভিযোগ করা হয়।

ওই গৃহবধূর স্বামী জানান, স্ত্রীকে নিয়ে ধান মৌসুমে বিভিন্ন গ্রামে গিয়ে ঘোড়ার গাড়ি করে ধান সংগ্রহের কাজ করেন। প্রায় বিশ দিন আগে ধান সংগ্রহ করতে ঝিনাইদহ জেলার শৈলকুপা উপজেলার বইনদেখালি থেকে মাগুরা সদরের জাগলা গ্রামে আসেন। তাদের কোনো থাকার জায়গা না থাকায় জাগলা গ্রামে মাঠে পলিথিনের তাঁবু তৈরি করে বসবাস করছিলেন। গত শনিবার রাতে অপরিচিত পাঁচজনের একটি দল ধারালো অস্ত্র নিয়ে তাদের উপর চড়াও হয় এবং মেরে ফেলার হুমকি দেয়। তাকে একটি গাছের সাথে বেঁধে, স্ত্রীকে পাশের একটি পুকুরের কাছে নিয়ে গণধর্ষণ করে।

তিনি আরও জানান, দলটি তাদের কাছ থেকে ৫ হাজার টাকাও ছিনিয়ে নেয়। দলটি ঘটনাস্থল ত্যাগ করার পর তারা চিৎকার দিলে এলাকার লোকজন গিয়ে তাদের উদ্ধার করে।

মাগুরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জয়নাল আবেদীন বলেন, এই ঘটনায় ‘গণধর্ষণের শিকার’ ওই গৃহবধূ রোববার দুপুরে মাগুরা সদর থানায় অজ্ঞাতনামা পাঁচজনকে আসামি করে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন। তার স্বাস্থ্য পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। আসামিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

কেএ/ডিএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: