প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

সৎ ছেলেদের সঙ্গে জমি নিয়ে বিরোধ, বৃদ্ধাকে পিটিয়ে হত্যা

   
প্রকাশিত: ৬:৪৬ অপরাহ্ণ, ৫ জুলাই ২০২০

সৎ ছেলেদের সঙ্গে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে বৃদ্ধা মাকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগে চারজনকে আটক করেছে পুলিশ। শনিবার (৪ জুলাই) গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলায় রাজিন্দারপাড় গ্রামের এঘটনা ঘটে। রবিবার (৫ জুলাই) কোটালীপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা(ওসি) শেখ লুৎফর রহমান জানান, শনিবার (০৪ জুলাই) রাত সাড়ে ৮টার দিকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে কুলসুম বেগম (৬০) নামে এক বৃদ্ধা মারা যান। তিনি কোটালীপাড়া উপজেলার রাজিন্দারপাড় গ্রামের সবর আলী সিকদারের দ্বিতীয় স্ত্রী।

কুলসুম বেগমের ভাই কালাম ফকির অভিযোগ করেন, সৎ ছেলেদের সঙ্গে জমিজমা নিয়ে বিরোধ চলছিল। এর জেরে শনিবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে তার সৎ ছেলে ও তাদের স্ত্রীরা কুলসুমকে পিটিয়ে আহত করে। পরে তার গায়ে গরমপানি ঢেলে ও শুকনা মরিচের গুঁড়া ছিটিয়ে দেয়। কুলসুমের দুই ছেলে ও ছেলের বউ তাকে উদ্ধার করতে গেলে তাদেরও মারধর করা হয়। তাদের শরীরেও গরম পানি ঢেলে মরিচের গুঁড়া ছিটিয়ে দেয়া হয়।

পরে তার বোনের খবর পেয়ে কুলসুমকে উদ্ধার করে প্রথম কোটালীপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, পরে গোপালগঞ্জ সদর হাসপাতাল ও বিকেলে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে রাত সাড়ে ৮টার দিকে তিনি মারা যান।

কোটালীপাড়া থানার ওসি শেখ লুৎফর রহমান জানান, গতকাল (৪ জুলাই) সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে কুলসুম বেগমের বড় সতীন রিজিয়া বেগমের ছেলে, মেয়ে, ছেলে বউসহ পরিবারের আরো বেশ কয়েকজন জমি-জমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে কুলসুম বেগমকে বেদম মারপিট করে।

পরে আহত কুলসুম বেগমকে প্রথমে কোটালীপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও পরে গোপালগঞ্জ ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে এবং সেখানে তার শারিরিক অবস্থার অবনতি হলে তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে তিনি রাতে মারা যান। এ ঘটনায় নিহতের ভাই কালাম ফকির বাদী হয়ে ৭ জনকে আসামি করে রাতেই কোটালীপাড়া থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

রাতেই অভিযান চালিয়ে জড়িত থাকার অভিযোগে ৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। প্রাথমিক তদন্তে ধারণা করা হচ্ছে, জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জেরে হত্যাকাণ্ডের এ ঘটনা ঘটেছে। তদন্ত করে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান।

কেএ/ডিএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: