প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

এম. সুরুজ্জামান

শেরপুর প্রতিনিধি

হতদরিদ্র স্বপন অর্থাভাবে হৃদযন্ত্রের অস্ত্রোপচার করাতে পারছেন না

   
প্রকাশিত: ৭:৫৭ অপরাহ্ণ, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০

শেরপুরে দীর্ঘদিন যাবত হৃদরোগে আক্রান্ত হতদরিদ্র দিনমজুর স্বপন বিশ্বাস (৫২) অর্থাভাবে অস্ত্রোপচার করাতে পারছেন না। তার হৃদযন্ত্রে ৩ টি ব্লক ধরা পড়েছে। এখন বাঁচার জন্য সমাজের বিত্তবানদের সহযোগিতা কামনা করছেন তিনি। শেরপুর পৌর শহরের সজবরখিলা সাতানিপাড়া মহল্লার বাসিন্দা ৪ সন্তানের জনক স্বপন বিশ্বাস একটি মিষ্টির দোকানের কর্মচারী ছিলেন। বেশ কয়েক বছর আগে তিনি শহরের কালিরবাজার (বটতলা) মোড়ে একটি ছোট্ট চায়ের দোকান দেন। ২ ছেলে বিয়ে করে আলাদা হয়ে যাবার পর চা দোকানের আয়ের টাকায় স্ত্রী ও অপর ২ ছেলেকে নিয়ে কোনরকমে দিন কাটলেও বছর দুয়েক আগে হঠাৎই অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। প্রথমে শেরপুর জেলা সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিলেও পরে তাকে রেফার করা হয় ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। সেখানে তার হৃদযন্ত্রে প্রাথমিক অবস্থায় ১টি ব্লক ধরা পড়ে।

পরে ঢাকায় জাতীয় হৃদরোগ ফাউন্ডেশনে গিয়ে আবার পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হলে সেখানে তার হৃদযন্ত্রে ৩টি ব্লক ধরা পড়ে। সেখানে প্রফেসর ডাঃ আতাহার আলীর তত্বাবধানে বেশ কিছুদিন চিকিৎসাধীন থাকার পর তিনি স্বপনের হৃদযন্ত্রে ৩টি রিং পরানোর পরামর্শ দেন। এতে প্রয়োজন প্রায় ২ লক্ষাধিক টাকা। কিন্তু সহায়-সম্বলহীন ও হতদরিদ্র স্বপন বিশ্বাসের পক্ষে এত টাকা জোগাড় করা কোনভাবেই সম্ভব নয়। শুধুমাত্র সরকারের কাছ থেকে লীজ নেওয়া সাড়ে ৩ শতাংশ জমির বসতভিটা ছাড়া আর কোন সহায়-সম্পদ নেই তার।

স্বপন বিশ্বাস কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন, দুই বছরেরও বেশি সময় ধরে ঔষধ ও চিকিৎসায় তার দীর্ঘদিনের জমানো প্রায় ২ লক্ষ টাকা ব্যয় হয়ে গেছে। এখন অপারেশনের জন্য তার কোন টাকা-পয়সা নেই। তাই তিনি প্রশাসনসহ সমাজের বিত্তবানদের কাছে সহায়তার আবেদন জানান।

এসএ/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: