প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

মনজুরুল ইসলাম

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি

হালুয়াঘাটে শিক্ষিকার পিটুনিতে আহত শিক্ষার্থী হাসপাতালে ভর্তি

   
প্রকাশিত: ৭:৫৩ অপরাহ্ণ, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটে নাহিদ হাসান (৭) নামে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পড়ুয়া তৃতীয় শ্রেণীর এক ছাত্র শিক্ষিকার ডাস্টারের পিটুনিতে আহত হওয়ার অভিযোগ ওঠেছে। রবিবার (১৬ ফেব্রুয়ারী) দুপুরে উপজেলার খরমা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত ওই শিক্ষিকার নাম ফরিদা খাতুন। সে ওই বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা।

আহত শিক্ষার্থীকে রবিবার (১৭ ফেব্রয়ারী) ওই দিন রাত সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। সে উপজেলার খরমা গ্রামের আবু রায়হানের ছেলে। খবর পেয়ে রাত ৯টায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. রেজাউল করিম, সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা মোশারফ হোসেন আহত শিক্ষার্থীকে দেখতে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আসেন।

আহত শিক্ষার্থীর বাবা আবু রায়হান বলেন, দুপুরে গণিত পড়া না পারায় ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা ফরিদা খাতুন আমার ছেলেকে ডাস্টার দিয়ে পিঠে এলোপাতাড়ি পেটায়। ছেলে ভয়ে বাড়িতে কাউকে কিছু বলেনি। রাতে খাবার খাওয়ার সময় সে বমি করে। পরে ঘটনা খুলে বললে আমি দ্রুত তাকে হাসপাতালে নিয়ে আসি।

এ বিষয়ে আহত শিক্ষার্থী নাহিদ হাসান জানায়, গণিত পড়া না পারায় ফরিদা ম্যাডাম ডাস্টার দিয়ে আমাকে পিঠে প্রচণ্ড মেরেছে। এ বিষয়ে অভিযুক্ত শিক্ষিকা ফরিদা খাতুন তাকে পেটানোর কথা স্বীকার করে বলেন, আমি ওই শিক্ষার্থীকে হাত দিয়ে মেরেছি। ডাস্টার দিয়ে নয়। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডা. সৈয়দ সাদ ইবনে ওয়াসেক বলেন, রাতে ওই শিক্ষার্থীকে তার বাবা-মা হসপিটালে নিয়ে আসেন। আমরা তাকে ভর্তি করেছি, তার চিকিৎসা চলছে। প্রাথমিক ৱভাবে দেখে মনে হচ্ছে কাঠের কোনো বস্তু দিয়ে তাকে পিঠে আঘাত করা হয়েছে। এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. রেজাউল করিম বলেন, আমি আহত শিক্ষার্থীর সঙ্গে কথা বলেছি। অভিযুক্ত ওই শিক্ষিকার বিরুদ্ধে প্রশাসনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এসএ/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: