প্রচ্ছদ / রাজনীতি / বিস্তারিত

মো. ইলিয়াস

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট

৪ সপ্তাহের মধ্যে কর্মসূচি: ফখরুল

   
প্রকাশিত: ১০:৩১ অপরাহ্ণ, ২৯ জুন ২০১৯

ফাইল ফটো

জাতীয় সংসদের মূল নকশার বাইরে থাকা জিয়াউর রহমানের কবর সংসদ ভবন এলাকা থেকে সরিয়ে ফেলার দাবি জানিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, বিষয়টি উল্লেখ করে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলছেন, ‘তিনি (মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী) এ ধরনের কথা প্রায়ই বলেন। আমরা মনে করি যে তারা যে রাজনৈতিকভাবে দেউলিয়া, এগুলো তারই বহিঃপ্রকাশ।’

শনিবার (২৯ জুন) সন্ধ্যায় বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার গুলশানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

কর্মসূচির বিষয়ে জানতে চাইলে মির্জা ফখরুল বলেন, আমরা কর্মসূচি নিয়ে কাজ করছি, চার সপ্তাহের মধ্যে কর্মসূচি আসবে।

ছাত্রদলের বিলুপ্ত কমিটির বিষয় জানতে চাইলে তিনি বলেন, ছাত্রদলের ব্যাপারে যারা দায়িত্বে রয়েছেন তারা তাদের দায়িত্ব পালন করবেন এবং আপনাদের জানাবেন।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, স্থায়ী কমিটির বৈঠকে বরগুনায় রিফাত হত্যাকাণ্ডের তীব্র নিন্দা জানানো হয়েছে। সাম্প্রতিককালে এ ধরনের হত্যাকাণ্ডে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তথা সরকারের ব্যর্থতা ও উদাসীনতার পরিচয় দিচ্ছে বলে সবাই মনে করে। যেহেতু জনগণের দ্বারা নির্বাচিত নয়, তাদের কোনো জবাবদিহিতা নেই। গত ৩০ ডিসেম্বর নির্বাচনের সন্ত্রাস ও অস্ত্রের মুখে জনগণের অধিকার হরণ করেছে। তাই রাষ্ট্রের প্রতি জনগণের আস্থা হারিয়ে যাচ্ছে এবং ক্রমান্বয়ে বাংলাদেশ একটি ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত হতে যাচ্ছে। একটি চরম অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক, সামাজিক সংকট বিরাজ করছে দেশে।

তিনি বলেন, সবাই মনে করে এই চরম সঙ্কট নিরসনের একমাত্র উপায় হচ্ছে গণতন্ত্রের জন্য যিনি সারা জীবন লড়াই করেছেন, বেগম খালেদা জিয়া এবং রাজনৈতিক কারণে যে সকল নেতাকর্মী কারাবরণ করছেন তাদের মুক্তি। অবিলম্বে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে জনগণের পার্লামেন্ট গঠনেই এই সঙ্কট মোকাবেলার একমাত্র পথ।

তিনি আরও বলেন, অবিলম্বে দেশনেত্রী মুক্তি এবং এই আন্দোলনকে আরও বেগবান করার লক্ষ্যে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার বিষয়ে আলোচনা হয়েছে।

এর আগে বিকেল সাড়ে ৫ টায় বৈঠক শুরু হয়, শেষ হয় সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টায়।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সভাপতিত্বে বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, মির্জা আব্বাস, ড. মঈন খান, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, নজরুল ইসলাম খান, বেগম সেলিমা রহমান, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু।

এআইআর/ডিএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: