শতাধিক শিক্ষক মিলেও পাস করাতে পারেনি ৩৩ শিক্ষার্থীকে

   
প্রকাশিত: ১২:৩২ অপরাহ্ণ, ১৮ জুলাই ২০১৯

ছবি: প্রতীকী

উচ্চমাধ্যমিক সার্টিফিকেট (এইচএসসি) ও সমমান পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়েছে বুধবার (১৭ জুলাই)। সারাদেশে এবারের পাসের হার ৭৩.৯৩। এদের মধ্যে জিপিএ-৫ পেয়েছে ৪৭ হাজার ৫৮৬ জন শিক্ষার্থী।

এবার আটটি সাধারণ শিক্ষা বোর্ড, মাদ্রাসা ও কারিগরি বোর্ড মিলিয়ে ১০টি বোর্ডের অধীনে ৯ হাজার ৮১ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের মোট পরীক্ষার্থী ছিলেন ১৩ লাখ ৩৬ হাজার ৬২৯ জন। তাদের মধ্যে ৬ লাখ ৬৪ হাজার ৪৯৬ ছাত্র ও ৬ লাখ ৮৭ হাজার ৯ ছাত্রী। এর মধ্যে উত্তীর্ণ হয়েছেন ৯ লাখ ৮৮ হাজার ১৭২ জন।

২০১৯ সালের এইচএসিস ও সমমানের পরীক্ষার এবার ৯০৯টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শতভাগ শিক্ষার্থী পাস করেছে। আর ৪১টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের একজনও পাস করেনি।

আটটি সাধারণ বোর্ডের পাসের হার ৭১.৮৫ শতাংশ। আর জিপিএ–৫ পেয়েছেন ৪১ হাজার ৮০৭ জন।

মাদ্রাসা বোর্ডে পাসের হার ৮৮.৫৬ শতাংশ। এই বোর্ডে জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ হাজার ২৪৩ জন। কারিগরি শিক্ষা বোর্ডে পাসের হার ৮২.৬২ শতাংশ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৩ হাজার ২৩৬ জন।

এ বছর রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডে এবার পাসের হার ৭৬.৩৮। রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এবার মোট পরীক্ষার্থী ছিল ১ লাখ ৫১ হাজার ১৩৪ জন। প্রকাশিত ফলাফলে দেখা যায় এবার রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডে পরীক্ষায় মোট উপস্থিত ছিলেন- ১,৪৮,৬৭২ জন। এতে মোট উপস্থিত ছাত্র সংখ্যা ৮০ হাজার ৮২২ জন, ছাত্রদের পাশের হার ৭২ দশমিক ৩২ শতাংশ। উপস্থিত ছাত্রীসংখ্যা ৬৭ হাজার ৮৫০ জন, ছাত্রীদের পাশের হার ৮১.১৩ শতাংশ। এবার রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডে মোট জিপিএ ৫ পেয়েছেন ৬৭২৯ জন যার মধ্যে ৩৫৪১ জন ছেলে আর ৩১৮৮ জন মেয়ে।

এবার রাজশাহী বোর্ডের ৩৪টি কলেজ থেকে শতভাগ শিক্ষার্থী পাশ করেছেন। আর ৭টি কলেজ থেকে একজন শিক্ষার্থী ও পাস করতে পারেনি।

একজনও পাস না করা ওই সাতটি কলেজের শতাধিক শিক্ষক মিলেও পাস করাতে পারেননি ৩৩ জন শিক্ষার্থীকে। ফলে ওই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান গুলোর সবাই এবারের এইচএসসি পরীক্ষায় অকৃতকার্য হয়েছেন। এরই মধ্যে এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে বোর্ড কর্তৃপক্ষ।

শতভাগ ফেল করা কলেজগুলোর মধ্যে নওগাঁর মান্দার চকলি বহুমুখী হাই স্কুল অ্যান্ড কলেজের পরীক্ষার্থী ছিল ১৪ জন। চকমান্দা কলেজ থেকে ৯ শিক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নিয়ে কেউ পাস করেন নি। জয়পুরহাট নাইট কলেজের তিন শিক্ষার্থী, রাজশাহীর দুর্গাপুরের দেবীপুর কলেজের তিন শিক্ষার্থী, গণকপাড়া স্কুল অ্যান্ড কলেজের দুই শিক্ষার্থী, সিরাজগঞ্জের চৌগাছা ওমেন্স কলেজের এক শিক্ষার্থী ও জয়পুরহাটের হিসমী আদর্শ কলেজের এক শিক্ষার্থীর কেউ পাস করেন নি। তারা সবাই অকৃতকার্য হয়েছে।

এছাড়া শতভাগ পাস করা কলেজের সংখ্যা ৩৪টি। ১০ থেকে ৫০ শতাংশ পাস করা কলেজ ৭৫টি। ৫০ থেকে ৯৯ শতাংশ পাস করা কলেজ ৬৪২টি।

এ ব্যাপারে রাজশাহী শিক্ষা বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক আনারুল হক প্রামাণিক বলেন, শতভাগ ফেল করা কলেজগুলো নতুন। তাদের এমপিও নেই। কলেজগুলোর সঙ্গে যোগাযোগ করা হবে। তাদের শোকজ করা হবে। সন্তোষজনক উত্তর না পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

উল্লেখ্য, এ বছর এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হয় গত ১ এপ্রিল। পরীক্ষা শেষ হয় ১২ মে। আর ১২ থেকে ২১ মের মধ্যে হয় ব্যবহারিক পরীক্ষা।

টিএএফ/এসইসি

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: