প্রথম ধাপের ট্রায়ালে কার্যকর চীনের ভ্যাকসিন: ল্যানসেট

                       
প্রকাশিত: ৫:৩৪ অপরাহ্ণ, ২৩ মে, ২০২০
ছবি: ইন্টারনেট

নভেল করোনাভাইরাস প্রতিরোধের আশায় চীনে যে ভ্যাকসিনের ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শুরু হয়েছে, তার একটি প্রথম ধাপে ‘কার্যকর’ বলে প্রমাণিত হয়েছে। শুক্রবার প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এই খবর দিয়েছে চিকিৎসাশাস্ত্র-বিষয়ক বিখ্যাত সাময়িকী দ্য ল্যানসেট। ল্যানসেট জানিয়েছে, (Ad5-nCoV) ভ্যাকসিনটি মানুষের শরীরে নিরাপদ, সহনশীল এবং নভেল করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে ভালো রোগ প্রতিরোধক ব্যবস্থা গড়ে তুলেছে। এই ভ্যাকসিনটি ব্যবহার করা যাবে কি না, সেটি শতভাগ নিশ্চিত হতে আরও দুটি ট্রায়ালের জন্য অপেক্ষা করতে হবে।

প্রথম ধাপে ১০৮ জন স্বাস্থ্যবান স্বেচ্ছাসেবীকে নিয়ে ভ্যাকসিনটির ট্রায়াল দেয়া হয়। ২৮ দিন বাদে বিজ্ঞানীরা ‘আশা জাগানিয়া’ ফল পান। বাকি দুটি ধাপের ট্রায়াল শেষ হতে হতে আরও ছয় মাস সময় লাগবে। মানুষের শরীরে ক্ষতিকর কোনো ভাইরাস প্রবেশ করলে রক্তে আপনা-আপনি এক ধরনের প্রতিরোধক ব্যবস্থা গড়ে ওঠে। তৈরি হয় ভাইরাস প্রতিরোধী অ্যান্টিবডি। অধিকাংশ ভাইরাস সেই অ্যান্টিবডির কারণে শরীরের ক্ষতি করতে পারে না। কিন্তু নভেল করোনাভাইরাস পারছে। একে প্রতিরোধ করতে হলে টিকার মাধ্যমে রোগ প্রতিরোধক ব্যবস্থাকে (ইমিউন সিস্টেম) শক্তিশালী করা দরকার। বিজ্ঞানীরা সেই চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

চীনে এখন পর্যন্ত পাঁচটি প্রতিষ্ঠান ভ্যাকসিনের হিউম্যান ট্রায়াল শুরু করেছে। ল্যানসেট যেটির খবর দিল, সেটি নিয়ে কাজ করছে বেইজিং ইন্সটিটিউট অব বায়োটেকনোলজি। প্রতিষ্ঠানটির প্রফেসর ওয়েই চেন প্রথম ধাপের ডেটা বিশ্লেষণকে ‘গুরুত্বপূর্ণ মাইলফলক’ বলেছেন। ‘এই ফলাফল একটি গুরুত্বপূর্ণ মাইলফলক। আমাদের ভ্যাকসিনের একটি ডোজে ১৪ দিনেই ভাইরাস-প্রতিরোধী অ্যান্টিবডি এবং টি সেল তৈরি হয়েছে। পরবর্তী ট্রায়ালে যাওয়ার আগে এটি আমাদের সফল হওয়ার সম্ভাবনা বাড়িয়ে দিয়েছে।’

‘তবুও এই ফলাফলকে সতর্কতার সঙ্গে ব্যাখ্যা করা উচিত। কভিড-১৯ রোগের ভ্যাকসিন তৈরি কষ্টসাধ্য। যে রোগ প্রতিরোধক ব্যবস্থা এখন পর্যন্ত আমাদের ভ্যাকসিনে দেখা গেছে, সেটি চূড়ান্ত নয়। এই ফলাফল আশা জাগাচ্ছে। আমাদের এখনো অনেক পথ পাড়ি দিতে হবে।’ কোনো প্রতিষেধক না থাকা কভিড-১৯ রোগের ভ্যাকসিন তৈরি করতে চীনসহ আরও অনেক দেশ উঠেপড়ে লেগেছে। এর মধ্যে আমেরিকায় ১২টি কোম্পানি চেষ্টা করছে। দেশটির সঙ্গে যৌথভাবে জার্মানি আরেকটি নিয়ে কাজ করছে।

ব্রিটেনের অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির বিজ্ঞানীরা একাধিকবার বলেছেন, সেপ্টেম্বরের ভেতর তাদের ভ্যাকসিন তৈরি হয়ে যাবে। তবে এই ভ্যাকসিনটি নিয়ে একটু শঙ্কা তৈরি হয়েছে। বানরের শরীরে ট্রায়ালে ‘অকার্যকর’ প্রমাণিত হয়েছে। তবে চীনের মতো আমেরিকার মর্ডানা কোম্পানির ভ্যাকসিনটি প্রথম ধাপের ট্রায়ালে কার্যকর প্রমাণিত হয়েছে। আমেরিকা জানিয়েছে, সামনের বছরের শুরুতে তারা পৃথিবীজুড়ে ভ্যাকসিন সরবরাহ করতে পারবে।

স্বাভাবিকভাবে নতুন একটি রোগের ভ্যাকসিন তৈরি করতে কয়েক বছর লেগে যায়। ডেঙ্গুর মতো অনেক রোগের ভ্যাকসিন আবার এখন পর্যন্ত তৈরি সম্ভব হয়নি। তবে চিকিৎসা ব্যবস্থা আছে। অনেকের শঙ্কা, করোনার ক্ষেত্রেও এমনটি হতে পারে।

এসএ/সাএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


পাঠকের মন্তব্য:

বর্তমানে জাতীয় সংসদ, নির্বাচন কমিশন সবিচালয়, আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জামায়াত, জাতীয় পার্টি, অপরাধ, সচিবালয়, আদালত, ব্যবসা-বাণিজ্য, শিক্ষা, খেলাধুলা, বিনোদনসহ প্রায় সব গুরুত্ত্বপূর্ণ বিটেই রয়েছে একঝাঁক তরুণ সাংবাদিক। এছাড়া সারাদেশে বিডি২৪লাইভ ডটকম’র রয়েছে প্রতিনিধি।

লাইফ স্টাইল

নিবন্ধন নং- ২২

© স্বত্ব বিডি২৪লাইভ মিডিয়া (প্রাঃ) লিঃ
এডিটর ইন চিফ: আমিরুল ইসলাম আসাদ
বাড়ি#৩৫/১০, রোড#১১, শেখেরটেক, ঢাকা ১২০৭

ফোন: ০৯৬৭৮৬৭৭১৯০, ০৯৬৭৮৬৭৭১৯১
ইমেইল: info@bd24live.com