প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

হারুন অর রশিদ রাজিব

বিশেষ প্রতিনিধি, নোয়াখালী

করোনা পরিস্থিতিতে মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত সহকারী মো. জাহাঙ্গীর আলম

   
প্রকাশিত: ১১:০১ অপরাহ্ণ, ২৫ মে ২০২০

করোনাযুদ্ধের এক অদম্য সৈনিক হিসেবে কাজ করে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত সহকারী নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আলহাজ্ব মো. জাহাঙ্গীর আলম। তিনি প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে নোয়াখালীর সোনাইমুড়ি-চাটখিল উপজেলায় সকল সেক্টরের উন্নয়নে নিরালস ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। স্পষ্ট ভাষী বিনয়ী আলহাজ্ব জাহাঙ্গীর আলম এরই মধ্যে সোনাইমুড়ি-চাটখিলের রাজনীতিতে উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন আনতে সক্ষম হয়েছেন বলে জানান চাটখিল ও সোনাইমুড়ী উপজেলার জনগন।

এবার কোভিড-১৯ করোনা ভাইরাসের কারনে নোয়াখালী-১ সংসদীয় আসন তথা চাটখিল ও সোনাইমুড়ি উপজেলায় ব্যক্তিগত ও আজিজা ফাউন্ডেশন এর অর্থায়নে মুক্তিযোদ্ধা, ইমাম-মুয়াজ্জিন, কৃষক, দলীয়নেতাকর্মী, সাংস্কৃতিককর্মী, নোয়াখালী জেলা প্রশাসক কার্যলয়, পুলিশ সুপার কার্যলয়, সাংবাদিক, স্কাউট শিশু ও শ্রমিকসহ করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত ৩০ হাজার মানুষের মাঝে খাদ্যসহায়তা বিতরণ করেছেন। মো. জাহাঙ্গীর আলম এর পক্ষে এ সকল খাদ্য সামগ্রী ও সুরক্ষা সামগ্রী বিতরন করেন সোনাইমুড়ি ও চাটখিল উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তাদের উপস্থিতে সোনাইমুড়ি উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মুমিনুল ইসলাম বাকের, সোনাইমুড়ি উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান নিজামউদ্দিন সুজন, জেলা যুবলীগের সদস্য আবু ছায়েম, সোনাইমুড়ি মহিলালীগের সভানেত্রী লুবনা মরিয়ম সুর্বনাসহ স্থানীয় আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, মহিলালীগ ও ছাত্রলীগসহ উপজেলার সকল ইউনিয়নের চেয়ারম্যানবৃন্দ। একই সময় চাটখিল উপজেলায় ত্রাণ সামগ্রী বিতরন করেন চাটখিল উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক জাকির হোসেন জাহাঙ্গীর, চাটখিল পৌরসভার মেয়র মোহাম্মদ উল্যাহ পাটোয়ারী, নোয়াখালীর জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান ও জেলা যুবলীগের যুগ্নআহবায়ক মাসুদুর রহমান শিপন , চাটখিল উপজেলা আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক আহসান হাবীব সমীর ,চাটখিল মহিলা লীগের সভানেত্রী শামীমা আক্তার মেরীসহ স্থানীয় আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, মহিলালীগ ও ছাত্রলীগসহ চাটখিল উপজেলার সকল ইউনিয়নের চেয়ারম্যানবৃন্দ।

সোনাইমুড়ি ও চাটখিল উপজেলার জনস্বাস্থ্য ঝুঁকিমুক্ত রাখার ব্যবস্থা নিয়েছেন তিনি। দুই উপজেলার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ডাক্তার ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের মাঝে করোনা ভাইরাসের প্রতিরোধে সুরক্ষা সামগ্রী এবং সাধারণ মানুষের মাঝে মাস্ক বিতরণ করেছেন এবং মসজিদ, মাদ্রাসা ও মন্দিরে কর্মীদের দিয়ে জিবাণুনাশক ছিটিয়েছেন। করোনা সংকটের শুরু থেকে ধাপে ধাপে এই সহায়তা কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি। সীমিত সামর্থ্যে তাঁর এই আন্তরিক প্রয়াস সাহস যুগিয়েছে প্রান্তিক মানুষকে। এদিক, দুর্যোগের মধ্যে চলে এসেছে উৎসব-ঈদ উল ফিতর। তাই এবার করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত অসহায় মানুষের ঘরে ঈদের আনন্দ ছড়িয়ে দেয়ার চ্যালেঞ্জ নিয়েছেন জাহাঙ্গীর আলম। ঈদকে সামনে রেখে দুই উপজেলার বেকার ও কর্মহীন হয়ে পড়া মানুষের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ শুরু করেন তিনি। ইতিমধ্যে রাজনৈতিক নেতাকর্মী, গণমাধ্যমকর্মী, বিভিন্ন পেশাজীবী ও সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের প্রতিনিধির কাছে পৌঁছে গেছে তাঁর ঈদ উপহার। তিনি ঈদ উপহার দিয়েছেন শিশুদের কেও। উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে ৫০০০ শিশুর মাঝে আলহাজ্ব মো. জাহাঙ্গীর আলমের পক্ষে জেলা পরিষদের সদস্য মাসুদুর রহমান শিপন শিশুদের মাঝে খাদ্য ও উপহার বিতরণ করেন।

এর আগে প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত সহকারী নোয়াখালী জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি জাহাঙ্গীর আলমের পক্ষে নোয়াখালী জেলার সাংবাদিকদের মাঝে ঈদ উপহার হিসেবে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়। তিনি নোয়াখালী প্রেসক্লাব অডিটোরিয়ামে জেলা ও উপজেলার দেড় শতাধিক প্রিন্ট, ইলেকট্রনিক, স্থানীয় পত্রিকার সাংবাদিক ও ক্যামেরা পারসনদের মোবাইল ফোনে ঈদ শুভেচ্ছা জানান এবং সাংবাদিকদের হাতে ঈদ উপহার তুলে দেওয়া হয়। মো. জাহাঙ্গীর আলমের পক্ষ থেকে ঈদ উপহার হিসেবে খাদ্যসামগ্রী পেয়েছেন জেলার সাংস্কৃতিক কর্মীরা।

সোনাইমুড়ী ও চাটখিল উপজেলা ইউনিয়ন চেয়ারম্যানদের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়াও দুই উপজেলার ইমাম-মুয়াজ্জিন, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের শিক্ষক ও স্কাউটের ৯ শতাধিক সদস্যের মাঝেও খাদ্যসামগ্রী ও ঈদ উপহার প্রদান করা হয়। এই ধারাবাহিকতায় উপজেলা আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও অঙ্গসংগঠনের ১০ হাজার নেতাকর্মীর মাঝে ঈদ উপহার বিতরণ করা হবে।

এ ছাড়াও চাটখিল ও সোনাইমুড়ি উপজেলার নি¤œ আয়ের আরো ২০ হাজার পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হবে। জনপ্রতিনিধি না হয়েও জনগণের কল্যাণে কাজ করা যায় এবং হয়ে ওঠা যায় জনগণের প্রকৃত বন্ধু। শুধু প্রয়োজন সদিচ্ছার, প্রয়োজন আন্তরিকতার এমনটাই বলছেন চাটখিল সোনাইমুড়ীর জনগন। করোনাকালে অসহায় ও কর্মহীন মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে সেই দৃষ্টান্তই সৃষ্টি করেছেন জাহাঙ্গীর আলম। মহামারী করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় জাহাঙ্গীর আলম চাটখিল ও সোনাইমুড়ি উপজেলার বিভিন্ন শ্রেনী-পেশার ৩০ হাজার মানুষের মাঝে সুরক্ষাসামগ্রী ও খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেছেন। চাটখিল ও সোনাইমুড়ি উপজেলার ১৬টি ইউনিয়ন ও ২টি পৌরসভায় সাধারণ মানুষ, দলীয় নেতাকর্মী, করোনা মোকাবেলায় স্বেচ্ছাসেবী, উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনের মাঝে ব্যক্তিগত সুরক্ষা সামগ্রী হিসেবে ২৫ হাজার পিস সার্জিক্যাল মাস্ক, ১৫০ পিস পিপিই, ৫০ পিস পিপি গাউন, ১২ হাজার পিস হ্যান্ড স্যানিটাইজার (হেক্সিসল), ৮ হাজার পিস হ্যান্ড গ্লাভস প্রদান করা হয়েছে। প্রানঘাতী করোনা ভাইরাসের কারনে
এছাড়া সোনাইমুড়ী ও চাটখিল উপজেলার জাহাঙ্গীর আলমের নির্দেশ আওয়ামীলীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের কর্মীরা কৃষকের মাঠের ধান কেটে দেয়। করোনা সংক্রমণের শুরুথেকে ধাপে ধাপে চাটখিল ও সোনাইমুড়ি উপজেলায় রিক্সাচালক, দিনমজুর, শ্রমিক ও নিম্ন আয়ের ১৫ হাজার পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত সহকারী আলহাজ জাহাঙ্গীর আলম। যার প্রতি প্যাকেটে ছিলো- ১০ কেজি চাল, ২ কেজি আলু, ১ কেজি মুসুরির ডাল, ১ লিটার সয়াবিন তেল ও ১ পিস সাবান। এছাড়াও তিনি স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধা, মহিলা আওয়ামীলীগ, ওলামায়েকেরাম, মৎস্যজীবীলীগসহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দের ৫ হাজার পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করেন। যার প্রতি প্যাকেটে ছিলো- ১০ কেজি চাল, ৩ কেজি আলু, ১ কেজি মুসুরির ডাল, ১ কেজি ছোলা, ১ লিটার সয়াবিন তেল ও রুহ আফজা। যতদিন দেশে করোনার প্রভাব থাকবে ততদিন এ সাহায্য অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন আলহাজ্ব জাহাঙ্গীর আলম। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে আমরা নিজ নিজ সংসদীয় এলাকায় করোনা মোকাবেলায় সাধারণ মানুষের পাশে থেকে কাজ করে যাচ্ছি। আপনারা দোয়া করবেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যেন সফলভাবে করোনা মহামারী থেকে দেশকে রক্ষা করতে পারেন।

এআইআ/এইচি

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: