ছাত্রদলের স্মারকলিপি

রাবি মেডিকেলে ৩০ আইসোলেশন বেড স্থাপনের দাবি

   
প্রকাশিত: ৬:৫৪ অপরাহ্ণ, ৪ জুন ২০২০

কামরুর হাসান অভি, রাবি থেকে: শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা কর্মচারীদের করোনা চিকিৎসায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল সেন্টারে ১৫ টি আইসিউ বেড স্থাপনসহ ৩০ টি আইসোলেশন বেড স্থাপনের দাবি জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা। বৃহস্পতিবার (৪ জুন) দুপুরে এই দাবির পক্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ও ছাত্র উপদেষ্টা অধ্যাপক ড. লুৎফর রহমানের কাছে এ স্মারকলিপি জমা দেন ছাত্রদল নেতারা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আব্দুস সোবহান বরাবর দেওয়া ওই স্মারকলিপিতে বলা হয়, বিদ্যমান করোনা পরিস্থিতিতে লকডাউন শিথিলের সরকারী হটকারী সিদ্ধান্তে বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিস সমূহ খুলে দেয়া হয়েছে। ফলে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক,কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ মারাত্নক স্বাস্থ্য ঝুকির মধ্যে রয়েছে। বর্তমান পরিস্থিতিতে আমরা দেখছি,করোনা আক্রান্ত ব্যাক্তির হাসপাতালে ভর্তির জন্য সরাসরি প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ করা হচ্ছে এবং করোনা টেস্ট ও হাসপাতালে ভর্তি নিয়েও স্বজনপ্রীতি করা হচ্ছে।

এই মহামারীতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক/শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য আলাদা আইসোলেশন সেন্টার অতীব জরুরী। এমতাবস্থায় বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল সেন্টারে করোনা টেস্ট ল্যাব স্থাপন ওবং নূন্যতম ১৫ আইসিইউ বেড স্থাপন ও ৩০টি আইসোলেশন বেড স্থাপনের প্রয়োজনীয়তা আছে বলে আমরা মনে করি। তাছাড়া রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের যে কেউ করোনা আক্রান্ত হলে তার চিকিৎসা ভার বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনের পক্ষ থেকে ব্যবস্থা নেওয়ার জোর দাবি জানানো হয় স্মারকলিপিতে।

এছাড়া বিদ্যমান করোনা পরিস্থিতিতে ছাত্র-ছাত্রীসহ সকল সদস্যের স্বাস্থ ঝুঁকির নিরাপত্তা নিশ্চিত না করে ক্লাস ও হলসমূহ যাতে খুলে দেওয়া না হয়, সেদিকে লক্ষ্য রাখা, সরকারের কোনো হটকারি সিদ্ধানের প্রভাবিত না হয়ে স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান হিসেবে সুচিন্তিত সিদ্ধান্ত গ্রহণ এবং লকডাউনে কর্মহীন হয়ে যাওয়া অসচ্ছল শিক্ষার্থীর পরিবারদের আর্থিক সহায়তা প্রদানের জোর দাবিও জানানো হয়।

এ সময় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রদলের সদ্য সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক রাজু আহমেদ মামুনের নেতৃত্ব , সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সুলতান আহমেদ রাহি , আব্দুল লতিব সম্রাট , আতিক শাহরিয়ার আবির প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

কাওসার/নিএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: