করোনায় উপনির্বাচনে আগ্রহ নেই বিএনপির

                       
প্রকাশিত: ৪:৪৯ অপরাহ্ণ, ৫ জুলাই, ২০২০
ছবি: ইন্টারনেট

মহামারি করেনা ভাইরাসের মধ্যে উপনির্বাচনে অংশগ্রহণে আগ্রহ নেই বিএনপির। তাই আগামী ১৪ জুলাই অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া যশোর-৬ ও বগুড়া-১ আসনের উপনির্বাচন পেছানোর দাবি জানানো হবে দলটির পক্ষ থেকে। নির্বাচন কমিশন দাবি না মেনে নিলে উপনির্বাচন বর্জনও করতে পারে দলটি। তবে দলটির স্থায়ী কমিটির বৈঠকের পরে এই বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানা যাবে। রবিবার (৫ জুলাই) বিকালে উপনির্বাচন অংশগ্রহণের বিষয়ে দলীয় সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করতে বিএনপির স্থায়ী কমিটির বৈঠক ডাকা হয়েছে। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, উপনির্বাচন নিয়ে দলের মধ্যে কোনও আলোচনা হয়নি। দেশে করোনা মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়ছে। এই সময় নির্বাচন! বিকালে দলের স্থায়ী কমিটির বৈঠক আছে। সেখানে উপনির্বাচন নিয়ে আলোচনা হতে পারে।

বিএনপির নেতারা বলছে, করোনার কারণে এই দুটি আসনের উপনির্বাচন পেছানো হয়েছিল। আগের তুলনায় এখন দেশে করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যুর হার ঊর্ধ্বমুখী। দেশে মহামারিতে মৃত্যুর মিছিল যখন বাড়ছে তখন নির্বাচন কমিশন সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতার কারণে দেখিয়ে আবার নতুন করে নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করেছে। তাহলে প্রশ্ন আসে মানুষের জন্য সংবিধান, নাকি সংবিধানের জন্য মানুষ। মানুষের জীবন বাঁচলে পরেও নির্বাচন করা যাবে। ফলে বিএনপির পক্ষ থেকে নির্বাচন পেছানোর দাবি জানানো হবে। নির্বাচন পেছানো না হলে সেক্ষেত্রে এই দুই আসনের উপনির্বাচন বর্জন করা হতে পারে। তবে বিশেষ করে বগুড়াতে বর্তমানে করোনা মাহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়েছে। সেখানকার স্থানীয় নেতাকর্মীদের নির্বাচনে অংশ নেওয়ার বিপক্ষে।

বগুড়া জেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট সাইফুল ইসলাম বলেন, উত্তরাঅঞ্চলের মধ্যে বগুড়ায় করোনার প্রভাব সবচেয়ে বেশি। এই সময়ে কিভাবে নির্বাচনের প্রচার-প্রচারণা করবে মানুষ। চাইলে কী কারও বাড়িতে ভোট চাইতে যেতে পারবো। আর আজ ৫ তারিখ, নির্বাচনের বাকি আছে মাত্র ৯ দিন। এই সময়ের মধ্যে কিভাবে নির্বাচনের প্রস্তুতি নেবে।

তিনি আরও বলেন, আমাদের জেলার অনেক নেতাকর্মী করোনায় আক্রান্ত। এই জন্য নির্বাচন নিয়ে দলের নেতাকর্মীদের আগ্রহ নেই। বিষয়টি কেন্দ্রকে জানানো হয়েছে। এখন নির্বাচন নিয়ে কেন্দ্রীয় বিএনপির কী সিদ্ধান্ত তা আমাদের জানায়নি। আজ-কালের মধ্যে দলের সিদ্ধান্ত জানানো হবে বলে ঢাকা থেকে জানানো হয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ২৯ মার্চ যশোর-৬ এবং বগুড়া-১ আসনের উপনির্বাচন অনুষ্ঠানের কথা থাকলেও করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে ভোট গ্রহণের সপ্তাহখানেক আগে তা স্থগিত করা হয়। আসন দুটির মধ্যে বগুড়ার আসন শূন্য হয় ১৮ জানুয়ারি এবং যশোরের আসন শূন্য হয় ২১ জানুয়ারি। ইতোমধ্যে আসন দুটির উপনির্বাচন অনুষ্ঠানের ৯০ দিন পার হয়েছে। সংবিধান প্রদত্ত সিইসির হাতে থাকা পরবর্তী ৯০ দিন পার হবে যথাক্রমে ১৫ ও ১৮ জুলাই।

কাওসার/শিই

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


পাঠকের মন্তব্য:

বর্তমানে জাতীয় সংসদ, নির্বাচন কমিশন সবিচালয়, আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জামায়াত, জাতীয় পার্টি, অপরাধ, সচিবালয়, আদালত, ব্যবসা-বাণিজ্য, শিক্ষা, খেলাধুলা, বিনোদনসহ প্রায় সব গুরুত্ত্বপূর্ণ বিটেই রয়েছে একঝাঁক তরুণ সাংবাদিক। এছাড়া সারাদেশে বিডি২৪লাইভ ডটকম’র রয়েছে প্রতিনিধি।

লাইফ স্টাইল

নিবন্ধন নং- ২২

© স্বত্ব বিডি২৪লাইভ মিডিয়া (প্রাঃ) লিঃ
এডিটর ইন চিফ: আমিরুল ইসলাম আসাদ
বাড়ি#৩৫/১০, রোড#১১, শেখেরটেক, ঢাকা ১২০৭

ফোন: ০৯৬৭৮৬৭৭১৯০, ০৯৬৭৮৬৭৭১৯১
ইমেইল: [email protected]