প্রচ্ছদ / সারাবিশ্ব / বিস্তারিত

আর মাত্র ১৪ দিনের মধ্যেই চলে আসবে রাশিয়ার ভ্যাকসিন

   
প্রকাশিত: ৮:১১ অপরাহ্ণ, ১৩ আগস্ট ২০২০

রুশ স্বাস্থ্যমন্ত্রী মিখাইল মুরাশকো বলেছেন, দুই সপ্তাহের মধ্যে করোনা ভাইরাস টিকার প্রথম চালান উৎপাদন ও ব্যবহারের জন্য প্রস্তুত হয়ে যাবে। আর মাত্র ১৪ দিনের মধ্যেই সাধারণ মানুষের ব্যবহারের জন্য চলে আসবে রাশিয়ার তৈরি করোনা ভাইরাসের টিকা স্পুটনিক। রুশ স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, দুই সপ্তাহের মধ্যে করোনা ভাইরাস টিকার প্রথম চালান উৎপাদন ও ব্যবহারের জন্য প্রস্তুত হয়ে যাবে।

বুধবার (১২ আগস্ট) তিনি স্পুটনিক নিউজকে বলেন, আজ টিকার মান নিয়ন্ত্রণ পরীক্ষা চলছে। আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে ওষুধের প্রথম চালান পাওয়া যাবে এবং স্বাস্থ্যঝুঁকিতে থাকা গ্রুপের স্বাস্থ্য কর্মীদের (টিকা দেওয়ার) জন্য সরবরাহ করা হবে।

করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন যথেষ্ট পরীক্ষিত এবং কার্যকারী। যারা ভ্যাকসিন তৈরির প্রতিযোগিতায় হঠাৎ করে পিছিয়ে পড়েছে তারাই এটা নিয়ে সন্দেহে করেছে বলে অভিযোগ করেছে রাশিয়া। রাশিয়ার দাবি অনুযায়ী এটিই পৃথিবীর প্রথম কার্যকরী করোনা ভ্যাকসিন। স্বয়ং রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন সাংবাদিকদের সঙ্গে এক বৈঠকে এ দাবি করেন।

রাশিয়ার তৈরি ভ্যাকসিন করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে উপযোগী এবং এর তেমন কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই। কিন্তু পুতিনের সেই দাবি মানতে নারাজ বিশ্বের অনেক দেশই। এতদিন ধরে ভ্যাকসিন নিয়ে সাফল্যের দৌড়ে এগিয়ে ছিল অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি ও অ্যাস্ট্রাজেনকা। ছিল মোডার্না, ফাইজারের মতো সংস্থাও। তাদের টেক্কা দিতেই রাশিয়া তড়িঘড়ি স্পুটনিক-ভি আনার কথা ঘোষণা করেছে বলে দাবি করছেন বহু দেশের বিশেষজ্ঞরা।

তাদের প্রধান অভিযোগ, রাশিয়ার এই করোনা ভ্যাকসিন এখনও মানব ট্রায়ালের সমস্ত ধাপ উত্তীর্ণ হয়নি। তাই এর কার্যকারিতা সংশয়াতীত নয়। এমনকী বিশ্ব স্বাস্থ্য বলেছে, সুরক্ষা সম্পর্কিত সমস্ত তথ্য কঠোরভাবে পর্যালোচনা করেই ভ্যাকসিনে ছাড়পত্র দেবে তারা। স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, এই ভ্যাকসিন এখনও প্রথম পর্যায়ের ট্রায়ালে রয়েছে। ফেজ টু বা ফাইনাল স্টেজ পরীক্ষা, যেখানে কয়েক হাজার মানুষের উপর ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হয়, তা করা হয়নি বলে অভিযোগ আমেরিকা-ব্রিটেনের মতো দেশের বিশেষজ্ঞদের।

এবার এই সব অভিযোগকারীদের জবাব দিলেন রাশিয়ার স্বাস্থ্যমন্ত্রী মিখাইল মুরাস্কো। তিনি বলেন, ‘মনে হচ্ছে আমাদের বিদেশের সহকর্মীরা দেখতে পাচ্ছে প্রতিযোগিতায় তারা রাশিয়ার ভ্যাকসিনের কাছে পিছিয়ে পড়ছেন। আর সে জন্যই ভিত্তিহীন সব অভিযোগ করছেন।’

কেএ/ডিএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: