প্রাথমিকে অনৈতিক লেনদেনে শিক্ষক নিয়োগের সুযোগ নেই: অধিদপ্তর

   
প্রকাশিত: ১২:০৩ পূর্বাহ্ণ, ২ ডিসেম্বর ২০২০

ছবি: সংগৃহীত

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক পদে নিয়োগ পরীক্ষায় চাকরিপ্রত্যাশীদের কাছ থেকে কিছু স্বার্থান্বেষী মহল অনৈতিক লেনদেন করেন। আর এই অনৈতিক লেনদেনের বিষয়ে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর জানিয়েছে, অর্থ লেনদেনের মাধ্যমে প্রাথমিকে শিক্ষক পদে নিয়োগের সুযোগ নেই। মঙ্গলবার (১ডিসেম্বর) অধিদপ্তরের এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, দেশের বিভিন্ন এলাকায় কিছু স্বার্থান্বেষী মহল চাকরিপ্রত্যাশীদের কাছ থেকে অর্থ লেনদেন করছেন যা প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের দৃষ্টিগোচর হয়েছে। প্যানেল থেকে শিক্ষক নিয়োগ করা হবে বলে স্বার্থান্বেষী মহলের প্ররোচনায় কোনো প্রকার অর্থ লেনদেন না করতে সংশ্লিষ্টদের অনুরোধ করা হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, ২০১৮ সালের ৩০ জুলাই সারাদেশের সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষকের শূন্য পদে নিয়োগের জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে ওই বছরের ৩০ আগস্ট পর্যন্ত আবেদন গ্রহণ করা হয়। সকল আনুষ্ঠানিকতা শেষ করে ২০১৯ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত সকল শূন্য পদ তথা ১৮ হাজার ১৪৭টি পদে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। নিয়োগ বিজ্ঞপ্তিতে কোনো প্যানেল করার বিষয় উল্লেখ ছিল না। ফলে এ নিয়োগে কোনো প্যানেল বা অপেক্ষমান তালিকা করা হয়নি।

চলতি বছরের ১৯ অক্টোবর সহকারী শিক্ষক নিয়োগে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর প্রায় ৩০ হাজার শূন্যপদের বিপরীতে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে।

কেএ/ডিএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: