মৃত্যুর পরে গলায় ব্যান্ডেজ বেঁধে ফিরে এলো জবা!

                       
প্রকাশিত: ৯:২৮ অপরাহ্ণ, ৪ ডিসেম্বর, ২০২০

ভারতীয় ধারাবাহিক ‘কে আপন কে পর’-এর অন্যতম চরিত্র জবা সেনগুপ্ত। সোশ্যাল মিডিয়ায় এভাবেই ট্রোল করা হলো ‘কে আপন কে পর’ ধারাবাহিকের জবা সেনগুপ্তের চরিত্রকে। ধারাবাহিকে ‘মৃত্যু’র পর সশরীরে ফিরে আসায় জবার নামের পাশে জুড়ে গেল ‘অমর’-এর তকমা। তাকে তুলনা করা হলো অ্যামিবার সঙ্গে। সে নাকি সেই এককোষী প্রাণীর মতো যাকে মেরে ফেলা প্রায় অসম্ভব।

এ ঘটনা নতুন নয়, এর আগেও জবার বোম ডিফিউজ করা, রাতারাতি পড়াশোনা শিখে উকিল এবং তারপর বিচারক হয়ে যাওয়া নিয়ে ট্রোলের বন্যা ছুটেছে। ধারাবাহিকের ২৪ নভেম্বরের এপিসোডে দেখানো হয়, জবার জা তন্দ্রা এবং জামাই বিশান তাকে একটি শুনশান জায়গায় নিয়ে হাড়িকাঠে চড়িয়ে বলি দেয়। কিন্তু সবাইকে অবাক করে এর পরেই জবা ফিরে আসে। গলায় শুধু একটা ব্যান্ডেজ বেঁধে সে এক্কেবারে ফিট। মুখে মেকআপ, ঠোঁটে লিপস্টিক আর কপালে ছোট্ট টিপে জবার ‘ভূত’ তাক লাগানো সুন্দরী।

এরপর ‘খুনি’ জামাইকে জব্দ করার জন্য ছদ্মবেশ ধরে জবা। শুধু তা-ই নয়, একসঙ্গে বসে রীতিমতো কথাবার্তাও বলে তার সঙ্গে। যদিও জবার আদৌ মৃত্যু হয়েছিল কি না সেই বিষয়ে ধোঁয়াশা ছিল শুরু থেকেই। এরপর সে ফিরে আসায় বিষয়টি দর্শকদের কাছেও এখন স্পষ্ট। ধারাবাহিকের এসব কাণ্ডকারখানা দেখেই জবাকে ‘ঝড়’-এর সঙ্গে তুলনা করেন ঝিলম গুপ্ত নামের এক নেটিজেন।

৮ মিনিটের একটি ভিডিওতে তিনি জবার বারবার মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে আসার কথা মনে করিয়ে দেন। আবার জবাকে মেরে ফেলার পর সেই রক্তমাখা দা-এর ভিডিও তার স্বামীকে হোয়াটসঅ্যাপ করায় জবার খুনিদের ‘হাইটেক’ তকমা দিলেন ঝিলম।

নাঈম/নিএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।


পাঠকের মন্তব্য:

বর্তমানে জাতীয় সংসদ, নির্বাচন কমিশন সবিচালয়, আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জামায়াত, জাতীয় পার্টি, অপরাধ, সচিবালয়, আদালত, ব্যবসা-বাণিজ্য, শিক্ষা, খেলাধুলা, বিনোদনসহ প্রায় সব গুরুত্ত্বপূর্ণ বিটেই রয়েছে একঝাঁক তরুণ সাংবাদিক। এছাড়া সারাদেশে বিডি২৪লাইভ ডটকম’র রয়েছে প্রতিনিধি।

লাইফ স্টাইল

নিবন্ধন নং- ২২

© স্বত্ব বিডি২৪লাইভ মিডিয়া (প্রাঃ) লিঃ
এডিটর ইন চিফ: আমিরুল ইসলাম আসাদ
বাড়ি#৩৫/১০, রোড#১১, শেখেরটেক, ঢাকা ১২০৭

ফোন: ০৯৬৭৮৬৭৭১৯০, ০৯৬৭৮৬৭৭১৯১
ইমেইল: info@bd24live.com