বিতর্কের মুখে নতুন নীতির পরিকল্পনা স্থগিত হোয়াটসঅ্যাপের

   
প্রকাশিত: ১২:১৭ অপরাহ্ণ, ১৬ জানুয়ারি ২০২১

অনেক ব্যবহারকারী ইতিমধ্যেই ছেড়েছেন এই অ্যাপ। প্রবল চাপে এ বর ডেটা শেয়ারিং সম্পর্কিত সেই আপডেট আপাতত পিছিয়ে দিল হোয়াটসঅ্যাপ। নিজস্ব ব্লগে এ কথা জানিয়েছে সংস্থা।

নতুন নীতিতে রয়েছে, ব্যবহারকারীদের সংরক্ষিত তথ্য হোয়াটসঅ্যাপ ভাগ করে নেবে ফেসবুকের সঙ্গে।

ব্লগ পোস্টে হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষ লিখেছে, “শর্তাদি পর্যালোচনা এবং গ্রহণ করার যে সময় দেওয়া হয়েছিল তা আমরা স্থগিত রাখছি । 8 ফেব্রুয়ারি কারও অ্যাকাউন্ট সাসপেন্ড বা মুছে ফেলা হবে না । হোয়াটসঅ্যাপের গোপনীয়তা এবং সুরক্ষা সম্পর্কে ভুল তথ্য দূর করতে আরও অনেক কিছু করা হচ্ছে । 15 মে নতুন বিজ়নেস অপশন উপলভ্য হওয়ার আগে ধীরে ধীরে মানুষের কাছে গিয়ে পলিসি নিয়ে পর্যালোচনা করা হবে ।”

কিছুদিন আগে হোয়াটসঅ্যাপ কর্তৃপক্ষ জানায়, ব্যবহারকারীদের ফোন নম্বর, লোকেশনের মতো তথ্য ফেসবুক, মেসেঞ্জার এবং ইনস্টাগ্রামে শেয়ার করার অধিকার আছে এই অ্যাপের । হোয়াটসঅ্যাপের এই সিদ্ধান্তে চরম বিতর্কের সৃষ্টি হয় । এই নতুন প্রাইভেসি পলিসির কারণে হোয়াটসঅ্যাপের পরিবর্তে সিগন্যাল অথবা টেলিগ্রামের মতো অ্যাপ ব্যবহার করতে শুরু করেছে ইউজ়াররা ।

এদিকে, মোবাইল অ্যাপের ইনটেলিজেন্স ডেটা বলছে, জানুয়ারির ৭ তারিখে হোয়াটসঅ্যাপ তাদের নতুন প্রাইভেসি পলিসি সামনে আনার পর থেকেই ভারতের অন্তত বারো লক্ষ মানুষ ‘সিগনাল’ ও ১৭ লক্ষ মানুষ ‘টেলিগ্রাম’ অ্যাপ ডাউনলোড করেছেন।

অন্য দিকে ভারতের প্রধান খবরের কাগজগুলোতে বিরাট বিজ্ঞাপন দিয়েও মানুষের আশঙ্কা দূর করতে হিমশিম খাচ্ছে হোয়াটসঅ্যাপ, নতুন বছরের প্রথম সাত দিনেই তাদের ডাউনলোডের হার কমেছে ১১ শতাংশ।

এআইআ/এইচি

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: