প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

মোঃ এস হোসেন আকাশ

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি

কুয়াশা উপেক্ষা করে কিশোরগঞ্জ ও কুলিয়ারচর পৌরসভায় চলছে ভোট গ্রহন

   
প্রকাশিত: ১:৪৭ অপরাহ্ণ, ১৬ জানুয়ারি ২০২১

উৎসবমুখর পরিবেশে কিশোরগঞ্জ ও কুলিয়ারচর পৌর নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। ঘন কুয়াশাকে উপেক্ষা করে সকাল থেকেই কিশোরগঞ্জ পৌরসভার ভোটকেন্দ্রগুলোতে ভোটারদের উপচেপড়া ভিড় লক্ষ্য করা গেছে।

শনিবার (১৬ জানুয়ারি) সকাল থেকে কিশোরগঞ্জ পৌর এলাকার রাকুয়াইল সরকারি বালিকা বিদ্যালয়, সাবুতাজ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, সরকারি আদর্শ শিশু বিদ্যালয়, এসভি সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, কিশোরগঞ্জ সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়, আজিম উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়, হয়বতনগর এ ইউ কামিল মাদ্রাসা, গুরুদয়াল সরকারি কলেজ, কিশোরগঞ্জ উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়, বত্রিশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, তারাপাশা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ওয়ালীনেওয়াজ খান কলেজ, সরকারি শিশু পরিবার, হাসমত উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়, কিশোরগঞ্জ টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজ, জেলা স্মরণী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় বঙ্গবন্ধু সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ বিভিন্ন কেন্দ্র ঘুরে ভোটারদের ব্যাপক ভিড় দেখা যায়। বিশেষ করে প্রতিটি কেন্দ্রে শত শত নারী ভোটারের দীর্ঘ লাইন ছিল চোখে পড়ার মতো।

রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, জেলার ২টি পৌরসভায় মোট ভোটার সংখ্যা ৯৬ হাজার ২২৭ ও মোট ভোটকেন্দ্রের সংখ্যা ৪৬টি। এর মধ্যে কিশোরগঞ্জ সদর পৌরসভার ভোটার সংখ্যা ৭১ হাজার ৮৪, ভোটকেন্দ্র ৩০, এর মধ্যে ২৮টি স্থায়ী ভোট কেন্দ্র ও ২ টি অস্থায়ী ভোট কেন্দ্র এবং কুলিয়ারচর পৌরসভায় ভোটার সংখ্যা ২৫ হাজার ১৪৩, ভোট কেন্দ্র ১৬ টি, এর মধ্যে ১২ টি স্থায়ী ও ৪ টি অস্থায়ী ভোট কেন্দ্র।

২টি পৌরসভার মধ্যে কিশোরগঞ্জ সদর পৌরসভায় মেয়র পদে ৪ জন ও সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৫৯ জন ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ২২ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন।

অন্যদিকে কুলিয়ারচর পৌরসভায় মেয়র পদে ২ জন, সাধারণ কাউন্সিলর ৪২ জন, সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর ১১ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

সকাল ৮ থেকে শুরু হওয়া ভোট গ্রহন টানা বিকাল ৪ টা পর্যন্ত চলবে।

কিশোরগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার মো. মাসরুকুর রহমান খালেদ বিপিএম (বার) জানান, নির্বাচনকে শান্তিপূর্ণ করতে সব পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। সাধারণ কেন্দ্রগুলোতে ৪ জন করে পুলিশ দায়িত্ব পালন করছে এবং ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রগুলোতে ৫ জন করে। এছাড়া অধিক ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রগুলোতে পুলিশের মোবাইল টিমের নজরদারি রয়েছে সার্বক্ষণিক।

এছাড়াও ম্যাজিস্ট্রেট, বিজিবি, র্যাব ও আনসার বাহিনীর সদস্যও মোতায়েন রয়েছে।

এআইআ/এইচি

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: