প্রচ্ছদ / সারাবিশ্ব / বিস্তারিত

আবারও দুর্ঘটনা

ভারতে বৌভাতে যাওয়ার পথে ট্রাকচাপায় প্রাণ গেল ১৪ জনের

   
প্রকাশিত: ১০:০৩ পূর্বাহ্ণ, ২০ জানুয়ারি ২০২১

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের জলপাইগুড়ি জেলার ধূপগুড়িতে পাথর বোঝাই ট্রাকের নিচে চাপা পড়ে অন্তত ১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় মৃতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। মঙ্গলবার (১৯ জানুয়ারি) রাতে ধূপগুড়ির জলঢাকা সেতুর কাছাকাছি মর্মান্তিক এ দুর্ঘটনা ঘটে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, রাত প্রায় ৯টার দিকে জলঢাকা সেতুর কাছে ময়নাতলি এলাকায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উল্টে যায় একটি পাথর বোঝাই ডাম্পার। তার ঠিক পেছনেই ছিল একটি ছোট গাড়ি। গাড়িটি দুর্ঘটনাগ্রস্ত ডাম্পারে সজোরে ধাক্কা মারে। এরপর ডাম্পারটি আরো দুটি ছোট গাড়ির ওপরে উল্টে পড়ে। ওই দুটি গাড়িতে কতজন যাত্রী ছিলেন তা এখনো জানা যায়নি। নিহতরা ময়নাগুড়ির চূড়াভাণ্ডার, রানিরহাট মোড় এবং মালবাজারের ডামডিম এলাকার বাসিন্দা বলে জানা গেছে। সবার পরিচয় এখনও জানা যায়নি বলে জানিয়েছে পুলিশ।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গাড়িটিতে শিশুসহ বেশ কয়েকজন যাত্রী রয়েছেন। তারা স্থানীয় বাসিন্দা। একটি বিয়ের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে বাড়ি থেকে বের হয়েছিলেন। এত বড় দুর্ঘটনায় মোট কতজনের মৃত্যু হয়েছে তা এখনো স্পষ্ট নয়। তবে রাত ১১টা পর্যন্ত ১৪ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। দুর্ঘটনার পর এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, এখনো বেশ কয়েকজন গাড়ির নিচে চাপা পড়ে আছেন। উদ্ধার কাজ চালাচ্ছেন পুলিশ সদস্যরা। রয়েছে দমকলও বাহিনীও। স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, প্রতিদিনই শত শত বালি এবং পাথর বোঝাই ডাম্পার ওই রাস্তায় চলে। এ কারণেই ওই এলাকা দুর্ঘটনাপ্রবণ এলাকায় পরিণত হয়েছে।

এর আগে, (১৯ জানুয়ারি) সাতসকালে এল বড়সড় দুর্ঘটনার খবর। ট্র্যাক পিষ্ট হয়ে মৃত্যু হল ১৩ জন শ্রমিকের। গুজরাটের সুরাটের কোসাম্বা এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গেছে। জানা গেছে, শ্রমিকরা রাস্তার কাছেই ঘুমাচ্ছিলেন, এসময় ঘুমের মধ্যেই লরির চাকায় পিষ্ট হয়ে যায় তাঁদের দেহ। ভোরের দিকে কোসাম্বা গ্রামে এই হৃদয় বিদারক দুর্ঘটনা ঘটে। এ খবর দিয়েছে কলকাতা ২৪।

সুরাট থেকে ৬০ কিমি দূরে এই কোসাম্বা গ্রাম। জানা গেছে, শ্রমিকেরা প্রত্যেকেই রাজস্থানের বাসিন্দা। দুর্ঘটনায় ১৩ জন শ্রমিকের ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয়। এছাড়া আরও বেশ কয়েকজনকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

নাঈম/নিএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: