প্রচ্ছদ / জাতীয় / বিস্তারিত

অনুরোধ জানিয়েছেন সংসদ সদস্যরা

জাতীয় সংসদে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার দাবি

   
প্রকাশিত: ২:৫৫ অপরাহ্ণ, ২০ জানুয়ারি ২০২১

ছবি: সংগৃহীত

শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যতের কথা বিবেচনায় নিয়ে দ্রুত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়ার অনুরোধ জানিয়েছেন সরকারি দলের সংসদ সদস্যরা। এমপিরা তাদের বক্তব্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুল দিতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়কে অনুরোধ করেছেন। এসময় তারা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় শিক্ষাব্যবস্থার ক্ষতির বিষয়ও তুলে ধরেন। আজ বুধবার (২০ জানুয়ারি) জাতীয় সংসদের অধিবেশনে রাষ্ট্রপতির ভাষণে ধন্যবাদ প্রস্তাবের ওপর আলোচনায় অংশ নিয়ে সরকারি দলের দুইজন সংসদ সদস্য এই দাবি করেন।

এ সময় স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী সভাপতিত্ব করেন। সাবেক গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী ছাড়াও সংসদ সদস্য সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার দাবি জানান।

লালমনিরহাট-১ আসনের এমপি এবং সাবেক প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মোতাহার হোসেন বলেন, করোনাকালে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় শিক্ষা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। ভার্চুয়াল ক্লাস হলেও গ্রামের শিক্ষার্থীরা খুব বেশি উপকৃত হতে পারছে না। তাই যত দ্রুত সম্ভব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হোক। তিনি বলেন, তিস্তা নদী তার এলাকার দুঃখের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। নদীতে পানি নেই। হেঁটেই নদী পার হওয়া যায়। ভারত থেকে যে পানি আসে তা খুব সামান্য। এতে আবাদের কাজ হয় না। তিস্তা চুক্তি বাস্তবায়ন হলো না। যত দ্রুত সম্ভব এই চুক্তি করা গেলে ওই অঞ্চলের মানুষ যথেষ্ট উপকৃত হবে।

একই দাবি করে চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সংসদ সদস্য সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার (ছেলুন) বলেন, আমাদের ছেলে মেয়েরা লেখাপড়া করতে পারছে না। গ্রাম গঞ্জে তারা সঠিকভাবে ক্লাস করতে পারছে না। যার পরিপ্রেক্ষিতে আমার মনে হয় এ ব্যাপারে একটা চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নেওয়া উচিত। স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, আমাদের শিক্ষার্থীরা যাতে লেখা পড়া করতে পারে দূরত্ব বজায় রেখে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে সেদিকে নজর দেওয়ার জন্য স্পিকারের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর মাধ্যমে শিক্ষামন্ত্রীকে অনুরোধ করব।

নাঈম/নিএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: