প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

এম. সুরুজ্জামান

শেরপুর প্রতিনিধি

নালিতাবাড়ীতে ইউপি সদস্য কর্তৃক উদ্যোক্তার অফিসে হামলার অভিযোগ

   
প্রকাশিত: ৭:৪৭ অপরাহ্ণ, ২৬ জানুয়ারি ২০২১

শেরপুরের নালিতাবাড়ীতে নিজের প্রেরিত ভিজিডি’র তালিকা থেকে নাম বাদ পড়ায় ইউনিয়ন ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তার অফিসে হামলা চালিয়ে আসবাবপত্র ভাংচুর করেছে একই ইউপি’র সদস্য।

সোমবার (২৫ জানুয়ারি) বিকেলে উপজেলার ১০নং যোগানিয়া ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় মঙ্গলবার (২৬ জানুয়ারি) উদ্যোক্তার লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে এ্যাসিল্যান্ডকে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিল করতে নির্দেশ দিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহফুজুল আলম মাসুম।

সুত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি সরকারীভাবে দুই বছর মেয়াদী ভিজিডি (ভার্নারেবল গ্রুপ ডেভেলপমেন্ট) এর তালিকা প্রস্তুত কার্যক্রম শুরু হলে যোগানিয়া ইউনিয়ন থেকে মোট ৭২৮টি আবেদন জমা পড়ে। তবে বরাদ্দের পরিমাণ ২০৮টি থাকায় নানা প্রক্রিয়ায় বাছাই শেষে বাকীগুলো বাদ দেওয়া হয় উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে। এর ফলে ১নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য কামাল হোসেনের দেওয়া ১৪টি নামের তালিকা থেকেও যথানিয়মে ৪টি বাদ পড়ে যায়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে সোমবার বিকেল তিনটার দিকে ইউপি সদস্য কামাল হোসেন সঙ্গে কয়েকজন নিয়ে যোগানিয়া ইউনিয়ন পরিষদের ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তার কক্ষে গিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে ও উদ্যোক্তার অনুপস্থিতিতে আসবাবপত্র ভাংচুর ও তছনছ করে। পরে ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা শেখ ফরিদ বিষয়টির প্রতিকার চেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগের প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহফুজুল আলম মাসুম সহকারী কমিশনার (ভূমি) কে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ প্রদান করেন। নির্দেশমতে বিকেলে সহকারী কমিশনার (ভূমি) সঞ্চিতা বিশ্বাস সরেজমিনে ঘটনার তদন্ত করেন।

ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা শেখ ফরিদ জানান, আমি উপস্থিত থাকলে আমার উপর ওই মেম্বারসহ সঙ্গীয়রা চড়াও হতেন। কিন্তু আমি না থাকায় তারা আসবাবপত্র ভাংচুর করেছে। একটি চেয়ার ভাঙ্গা হয়েছে এবং কম্পিউটারের ডিসপ্লে নষ্ট হয়ে গেছে।

মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার কার্যালয় সূত্র জানায়, তালিকা প্রণয়ন, যাচাই-বাছাই বা তালিকা থেকে বাদ দেওয়ার সাথে উদ্যোক্তার কোন সম্পৃক্ততা নেই। অহেতুক উদ্যোক্তাকে দোষারূপ করা হয়েছে।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহফুজুল আলম মাসুম জানান, তদন্তে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেলে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আমিনুল/শিইসি

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: