রাবির রেজিস্টার্ড গ্র্যাজুয়েটদের তালিকা করতে হাইকোর্টের নির্দেশ

   
প্রকাশিত: ১০:৩৬ অপরাহ্ণ, ২৬ জানুয়ারি ২০২১

কামরুল হাসান অভি, রাবি থেকে: প্রায় দুই যুগ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেটে ২৫ জন রেজিস্ট্রার্ড গ্রাজুয়েট প্রতিনিধি নির্বাচন অনুষ্ঠান না করার নিষ্ক্রিয়তাকে কেন বিধি বহির্ভূত ও বেআইনী ঘোষণা করা হবে না এবং কেন রেজিস্ট্রার্ড গ্রাজুয়েট প্রতিনিধি নির্বাচন করার নির্দেশনা দেওয়া হবে না সে মর্মে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের উপর রুলনিশি জারি করেছেন আদালত।

আগামী ৪ সপ্তাহের মধ্যে বিষয়টির জবাব দিতে বলা হয়েছে। এছাড়া ৬ মাসের মধ্যে রেজিস্টার্ড গ্র্যাজুয়েটদের তালিকা তৈরি করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়টির উপাচার্য ও রেজিস্ট্রারের প্রতি এ নির্দেশ দেওয়া হয়।

এক রিটের প্রাথমিক শুনানি নিয় সোমবার বিচারপতি মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি কামরুল হোসেন মোল্লার সমন্বয়ে গঠিত ভার্চ্যুয়াল হাইকোর্ট এর দৈগ বেঞ্চ রুলসহ এ আদেশ দেন।

এর আগে ২০১৯ এ দুই যুগ ধরে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেটে ২৫ জন রেজিস্টার্ড গ্র্যাজুয়েট প্রতিনিধি নির্বাচন অনুষ্ঠানে নিষ্ক্রিয়তা চ্যালেঞ্জ করে রিট পিটিশনটি দায়ের করেন ৪ জন- রাকসুর সাবেক ভিপি রাগিব আহসান মুন্না, সাবেক সিনেট সদস্য আইয়ুব আলী খান ও সাদাকাত হোসেন খান বাবুল এবং সাবেক ছাত্র মুন্সী আলাউদ্দিন আল আজাদ।

আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী আমিনুল হক হেলাল। সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী নাজিম মৃধা। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল নওরোজ মো. রাসেল চৌধুরী।

রুলে ২৩ বছরে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেটে ২৫ জন রেজিস্টার্ড গ্র্যাজুয়েট প্রতিনিধি নির্বাচন অনুষ্ঠানে বিবাদীদের নিষ্ক্রিয়তা কেন বিশ্ববিদ্যালয় আইনের ২০ ধারা ও সংবিধান পরিপন্থী ঘোষণা করা হবে না এবং সিনেটে ২৫ জন রেজিস্টার্ড গ্র্যাজুয়েট প্রতিনিধি নির্বাচনে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না, তা জানতে চাওয়া হয়।

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, রেজিস্ট্রার ও বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সচিবসহ বিবাদীদের চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

আইনজীবী আমিনুল হক হেলাল বলেন, সর্বশেষ ১৯৯৪ সালে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেটের রেজিস্টার্ড গ্র্যাজুয়েট প্রতিনিধি নির্বাচন হয়। এরপর আর নির্বাচনের উদ্যোগ দেখা যায়নি।

১৯৭৩ সালের রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় আইনের ২০ ধারা অনুসারে তিন বছর মেয়াদে সিনেটে ২৫ জন রেজিস্টার্ড গ্র্যাজুয়েট প্রতিনিধি নির্বাচনের কথা রয়েছে। কিন্তু সিনেটে শিক্ষক প্রতিনিধি নির্বাচনসহ অন্যান্য সদস্য পদে নির্বাচন হলেও রেজিস্টার্ড গ্র্যাজুয়েট প্রতিনিধি নির্বাচন হচ্ছে না, যা সংবিধানের ২৭ ও ৩১ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী বৈষম্যমূলক। এসব যুক্তিতে রিটটি করা হয়েছিল। শুনানি নিয়ে আদালত রুল দিয়ে এই নির্দেশ দেন।

আমিনুল/শিইসি

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: