প্রচ্ছদ / জেলার খবর / বিস্তারিত

জুলফিকার আলী ভূট্টো

নীলফামারী প্রতিনিধি

রপ্তানি ও শিল্প ব্যবহার যোগ্য আলুর উৎপাদন বৃদ্ধিতে গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে: নীলফামারীতে কৃষিমন্ত্রী

   
প্রকাশিত: ৬:৪১ অপরাহ্ণ, ২৭ জানুয়ারি ২০২১

কৃষিমন্ত্রী ড. মোঃ আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, বর্তমানে দেশে বছরে ১ কোটি টনের বেশি উন্নত জাতের আলু উৎপাদন হয়। অথচ দেশে চাহিদা রয়েছে ৬০/৭০ লাখ টনের মতো। দেশে উৎপাদিত আলুতে পানির পরিমান বেশি হওয়ায় বিদেশে আমাদের আলুর চাহিদা কম। সেজন্য বিদেশে চাহিদার বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে রপ্তানি ও শিল্প ব্যবহারযোগ্য আলুর আবাদ ও উৎপাদন বৃদ্ধিতে গুরুত্ব দেয়া হচ্ছে। কষি মন্ত্রণালয় সে লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে।

বুধবার (২৭ জানুয়ারি) সকালে নীলফামারীর ডোমার উপজেলায় বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশনের(বিএডিসি) বীজ আলু উৎপাদন খামার পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি।

মন্ত্রী বলেন, বিএডিসির মান সম্পন্ন বীজ আলু উৎপাদন ও সংরক্ষণ এবং কৃষক পর্যায়ে বিতরণ জোরদারকরন প্রকল্পের আওতায় ডোমার খামারে ভিত্তি বীজআলূ উৎপাদন করা হচ্ছে। পাশাপাশি নতুন জাতের উপযোগীতা যাচাইয়ের জন্য ট্রায়াল প্লট স্থাপন ও পর্যবেক্ষন করা হচ্ছে। এ ছাড়া প্রকল্পের আওতায় সারাদেশে ২৮টি জোনে চুক্তিবদ্ধ চাষির মাধ্যমে কৃষক পর্যায়ে ব্যবহৃত বীজ আলু উৎপাদন করা হচ্ছে। এ প্রকল্পের আওতায় উচ্চ ফলনশীল, রপ্তানি ও শিল্প ব্যবহার উপযোগী আলুর জাত পরিচিতি ও জনপ্রিয়করনের জন্য বিএডিসি আমদানিকৃত এবং বারি উদ্ভাবিত সম্ভামনাময় ২০টি জাত নিয়ে এ বছর সারাদেশে ৩০০টি প্রদর্শনী প্লট ও মাল্টিলোকেশন টেষ্ট পরিচালনা করা হচ্ছে। ২০২০-২১ উৎপাদন বর্ষে বিভিন্ন মানের ৩৭ হাজার ৫শত মেট্রিকটন বীজআলু এবং ৫ হাজার মেট্রিকটন রপ্তানি উপযোগী আলুসহ ৪২ হাজার ৫শত মেট্রিকটন আলু উৎপাদন কার্যক্রম চলমান রয়েছে।

এ সময় কৃষি সচিব মোঃ মেজবাহুল ইসলাম, বিএডিসির চেয়ারম্যান মোঃ সায়েদুল ইসলাম, কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোঃ আসাদুল্লাহ, বারির মহাপরিচালক নাজিরুল ইসলাম, গম ও ভুট্টা গবেষণা ইনষ্টিটিউটের মহাপরিচালক ড.মোঃ এছরাইল হোসেন, জেলা প্রশাসক হাফিজুর রহমান চৌধুরী, পুলিশ সুপার মোখলেছুর রহমান, জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও নীলফামারী পৌরসভার মেয়র দেওয়ান কামাল আহমেদ উপস্থিত ছিলেন। পরে মন্ত্রী বিএডিসি কার্যালয়ে কৃষি কর্মকর্তাদের সাথে মত বিনিময় সভায় মিলিত হন।

 

 

 

এমআর/এনই

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: