শাহিনুর রহমান শাহিন

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়

হল ছাড়তে এবার প্রশাসনের আলটিমেটামের মুখে জাবি শিক্ষার্থীরা

   
প্রকাশিত: ১০:১১ পূর্বাহ্ণ, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২১

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে এলাকাবাসীর সংঘর্ষের জেরে শনিবার (২১ ফেব্রুয়ারি) গেটের তালা ভেঙে হলে উঠে পড়া শিক্ষার্থীদের হল ছাড়তে আলটিমেটাম দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০টার মধ্যে তাদের হল ছাড়তে বলা হয়েছে। অন্যথায় ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে প্রশাসনের পক্ষ থেকে। রবিবার (২১ ফেব্রুয়ারি) রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার রহিমা কানিজ স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা বলা হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, কোভিড-১৯ মহামারি থেকে শিক্ষার্থীদের সুরক্ষার জন্য সরকারি নির্দেশে দেশের অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো এই বিশ্ববিদ্যালয়ও গত ১৯ মার্চ থেকে বন্ধ রাখা হয়েছে। তবে অনলাইন ক্লাস চালু রয়েছে। কিন্তু ২০ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় কিছু শিক্ষার্থী সরকারি নির্দেশ অমান্য করে জোর করে হলে প্রবেশ করে অবস্থান করছে। তাই প্রশাসন তাদের সোমবার সকাল ১০টার মধ্যে নিজ উদ্যোগে হল ছাড়তে নির্দেশ দিচ্ছে। অন্যথায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হবে।

এদিকে হলে প্রবেশের সুযোগ পেয়ে ছেলেদের আটটি হলে আস্তে আস্তে শিক্ষার্থীর সংখ্যা বাড়তে থাকে। শুক্রবারের ওই সংঘর্ষের পর থেকে হল খুলে দেওয়ার দাবি করে আসছেন শিক্ষার্থীরা। কিন্তু হল খুলে না দেওয়ায় রোববার (২১ ফেব্রুয়ারি) দুপুরে ছয় দফা দাবিসহ হামলার ঘটনায় মামলা করতে ২৪ ঘণ্টার আলটিমেটাম দেয় বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা। গতকালই রাত সাড়ে ৯টায় অজ্ঞাত ২৫০ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রারের রহিমা কানিজের নির্দেশে প্রশাসনের পক্ষ থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তা কর্মকর্তা জেফরুল হাসান চৌধুরী সজল বাদী হয়ে আশুলিয়া থানায় এই মামলা করেন।

মামলার বিষয়ে আশুলিয়া থানার পরিদর্শক (অপারেশন) আবদুর রশিদ বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে মামলা দেয়া হয়েছে। রাত সাড়ে ৯টার দিকে মামলা নেওয়া হয়।’

গ্রামবাসীদের সঙ্গে সংঘর্ষের জেরে গত শনিবার থেকে বিশ্ববিদ্যালয়টির আটটি ছাত্র হলে বেশকিছু শিক্ষার্থী অবস্থান করে আসছেন। তবে মেয়েদের আটটি হলে কেউ অবস্থান করছেন না বলে জানা গেছে।

এআইআ/এইচি

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: