এ আর রাশেদ

ইবি প্রতিনিধি

‘হল খোলার সিদ্ধান্ত’ পুনর্বিবেচনার দাবি ইবি শিক্ষার্থীদের

   
প্রকাশিত: ৮:৩৭ অপরাহ্ণ, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২১

আবাসিক হল খুলে দেওয়ার দাবিতে দ্বিতীয় দিনের মত আন্দোলন করেছেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা। আজ সোমবার (২২ ফেব্রয়ারি) সকাল ১১টায় বিক্ষোভ মিছিল শুরু করেন তারা। মিছিল শেষে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন আবাসিক হলের সামনে অবস্থান কর্মসূচী পালন করেন শিক্ষার্থীরা। এসময় বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীদের মধ্যে কয়েকজন হলের তালা ভাঙার চেষ্টা করেন বলে জানা যায়।

এসময় ‘শিক্ষকরা ভিতরে, আমরা কেন বাহিরে?’, ‘লাথি মার ভাঙরে তালা, খুলে ফেল হলের তালা’, ‘ভাওতাবাজি বন্ধ কর, হলগুলো ওপেন কর’, ‘আমার হল বন্ধ কেন, জবাব চাই জবাই চাই’ এমন বিভিন্ন স্লোগান দিতে থাকেন তারা।

এদিকে আজ দুপুরে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক জরুরি সংবাদ সম্মেলনে আগামী ১৭ মে বিশ্ববিদ্যালয়ের হল ও ২৪ মে থেকে সশরীরে একাডেমিক কার্যক্রম চালু হবে বলে জানান শিক্ষামন্ত্রী ডা. দিপু মনি। পরে মন্ত্রণালয়ের এ সিদ্ধান্তের সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করে তা পুনর্বিবেচনার দাবি জানান আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা। একইসাথে আগামীকাল সকাল ১১টায় সংবাদ সম্মেলন করে পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে বলে জানান তারা।

এ বিষয়ে কয়েকজন শিক্ষার্থীর সঙ্গে কথা বললে তারা জানান, হল খোলার বিষয়ে সরকারের সিদ্ধান্তের সাথে আমরা কোনভাবেই একমত না। আমরা এ সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার আহ্বান জানাচ্ছি। অবিলম্বে হল খোলা না হলে আমাদের আন্দোলন অব্যাহত থাকবে।

এর আগে গতকাল রবিবার (২১ ফেব্রয়ারি) একই দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের বাসভবনের সামনে অবস্থান কর্মসূচী পালন করেন শিক্ষার্থীরা। পরে শিক্ষার্থীদের একটি প্রতিনিধি দল উপাচার্যের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন বলে জানা যায়।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. শেখ আবদুস সালাম বলেন, ‘আগামীকাল (মঙ্গলবার) ডিনদের নিয়ে জরুরি সভা অনুষ্ঠিত হবে। এতে পরীক্ষার বিষয়ে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। হল খোলার ব্যাপারে সরকারের সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত।’

উল্লেখ্য, সোমবার দুপুরে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দিপু মনি এক সংবাদ সম্মেলনে আগামী ১৭ মে বিশ্ববিদ্যালয়ের হল ও ২৪ মে থেকে সশরীরে একাডেমিক কার্যক্রম চালু হবে বলে জানান। একইসাথে এসময়ে (হল খোলার আগে) কোন ধরনের একাডেমিক পরীক্ষা নেওয়া যাবে না বলে জানান তিনি।

নাঈম/নিএ

বিডি২৪লাইভ ডট কম’র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

পাঠকের মন্তব্য: